যোগ নিয়ে যুদ্ধ!

তা নিয়ে আবার সংঘাতের মুখে রাজ্য সরকার এবং রাজ্যপাল। আগামী ২১ জুন যোগ দিবস পালনের জন্য ই-মেল করে রাজ্যের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যদের অনুরোধ করেছেন রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠী। রাজ্যপালের এই ভূমিকায় শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় ক্ষুব্ধ। বৃহস্পতিবার তিনি বলেন, ‘‘রাজ্যপাল আচার্যের পদে রয়েছেন বলে আমাদের দফতরকে চিঠি না দিয়ে সরাসরি উপাচার্যদের তিনি চিঠি দেবেন, এটা খুবই দৃষ্টিকটু। রাজ্যকে অন্ধকারে রেখে রাজ্যপাল রাজ্যেরই বিশ্ববিদ্যালয়কে চিঠি দিচ্ছেন, এটা কতটা সাংবিধানিক, কতটা সৌজন্যপূর্ণ, উনি নিজেই ভেবে দেখুন।’’

রাজ্যের কোনও বিশ্ববিদ্যালয়কে নির্দেশ দিতে হলে তা সাধারণত শিক্ষা দফতরকে জানায় কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রক। সেই প্রসঙ্গ টেনে পার্থবাবু বলেন, ‘‘কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ মন্ত্রক শিক্ষা দফতরকে চিঠি দিলে, তা কার্যকরের দায়িত্ব শিক্ষা দফতরের। এখানে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যের দায়িত্ব নেওয়ার প্রথম দিন থেকেই খেলাধুলো, যোগা, শারীরশিক্ষার উপরে গুরুত্ব দিচ্ছেন। নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে যোগ-সংক্রান্ত বিভিন্ন সংস্থাদেরও ডাকা হয়।’’

রাজ্যপালের চিঠি প্রসঙ্গে শিক্ষামন্ত্রীর বক্তব্যেই স্পষ্ট যে গত বারের মতো এ বারও কেন্দ্রের কর্মসূচি মেনে রাজ্যে যোগ দিবস পালিত হওয়ার সম্ভাবনা কম। আর মাত্র সাত দিন বাকি থাকলেও, এ রাজ্যে ক্রীড়া দফতর এখনও উদ্যোগী হয়নি। ক্রীড়ামন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস এ দিন বলেন, ‘‘আমার কাছে এ ব্যাপারে এখনও কোনও ফাইল আসেনি।’’