• বাসুদেব ঘোষ 
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ভোররাতেই লাইন পুজোয়

Holy Bathing
জয়দেবের মেলায় স্নােন ভিড়। ছবি: বিশ্বজিৎ রায়চৌধুরী

Advertisement

ঠান্ডা উপেক্ষা করেই মকর সংক্রান্তির ভোরে অজয় নদে পুণ্যস্নান করলেন লক্ষাধিক পুণ্যার্থী। আঁটোসাঁটো নিরাপত্তার মধ্যে অজয়ের তিনটি ঘাটে চলে স্নান-পর্ব। কনকনে ঠান্ডাতেও মঙ্গলবার রাত থেকেই হাজার হাজার পুণ্যার্থী ভিড় জমাতে শুরু করেন জয়দেব কেঁদুলিতে। মঙ্গলবার রাত থেকে সময় যত গড়িয়েছে বাউল, সাধক দর্শনার্থীদের সমাগম তত বাড়তে দেখা গিয়েছে। 

শতাব্দী প্রাচীন এই মেলার অন্যতম বৈশিষ্ট্য হল বিভিন্ন ধরনের মানুষের সমাগম। মেলায় বিভিন্ন দোকানের পাশাপাশি বড় অংশ জুড়ে একাধিক আখড়া বসতে দেখা যায়। এ বছরও প্রায় ৫৫০টির উপর স্টল ও ২৫০ থেকে ৩০০টির কাছাকাছি আখড়া বসেছে। মঙ্গলবার থেকেই মেলার আখড়াগুলিতে বাউল, কীর্তন গানের আসরে ভিড় জমিয়েছেন দেশ-বিদেশ থেকে আসা হাজার হাজার মানুষ। বিভিন্ন আখড়াতেই মঙ্গলবার থেকে দর্শনার্থীদের জন্য বিনি পয়সায় ভোগ বিতরণের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

মেলায় আঁটোসাঁটো করা হয়েছে নিরাপত্তা ব্যবস্থা। পুলিশ ও প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, জয়দেব মেলা এলাকায় পর্যাপ্ত আলো, পানীয় জলের ব্যবস্থা, অস্থায়ী শৌচাগারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। সিভিক ভলান্টিয়ার ও পুলিশ মিলিয়ে প্রায় আড়াই হাজার ফোর্স মোতায়েন করা হয়েছে। ওয়াচ টাওয়ার, সিসি ক্যামেরা ও ড্রোনের মধ্য দিয়ে মেলায় নজরদারি চালাচ্ছেন পুলিশ কর্মীরা। বুধবার সকালে মকর সংক্রান্তি উপলক্ষে পুণ্যস্নান সেরে জয়দেবের রাধাবিনোদ মন্দিরে পুজো দেওয়ার জন্য ভক্তদের লম্বা লাইন পড়তে দেখা যায়। পুজো দেন জেলা পুলিশ সুপার শ্যাম সিংহও। এ দিনও ভোর থেকে বহু নাম সংকীর্তন এর দলকে নাম-গান করতে মেলায় আসতে দেখা যায়। 

কলকাতা থেকে এ বারই প্রথম মেলায় এসেছেন অনুরাধা মুখোপাধ্যায়। তিনি বলেন, ‘‘মেলায় ভিড় যথেষ্ট রয়েছে। কিন্তু, সর্বত্র পুলিশকর্মীদের দেখে ভরসা পাচ্ছি।’’ আসানসোল থেকে এসেছেন কাজল মণ্ডল, মীনাক্ষী মণ্ডলেরা। তাঁরা বলেন, ‘‘নিতাইগৌর সেবাশ্রমে উঠেছি। এখানে প্রতিবারই আসি। এ বার মেলা অনেকটাই পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন দেখে ভাল লাগছে।’’ শব্দদূষণ রুখতে জয়দেব মেলায় বেশ কয়েকটি আখড়ায় এ বারও মাইক ব্যবহার করা হচ্ছে না। ‘মনের মানুষ’ আখড়ায় গিয়ে দেখা গেল মাইক ব্যবহার না করেই শিল্পীরা গান-বাজনা করছেন। 

বোলপুরের মহকুমাশাসক তথা জয়দেব কেঁদুলি মেলা কমিটির সম্পাদক অভ্র অধিকারী বলেন, ‘‘মেলায় লক্ষাধিক পুণ্যার্থীর সমাগম হয়েছে। পর্যাপ্ত পরিমাণে অস্থায়ী শৌচাগারও করা হয়েছে। ব্যবহার হচ্ছে কিনা এ ব্যাপারে নজরদারিও চালানো হবে।’’

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন