অল্প সময়ের জন্য হলেও নোবেলজয়ী অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাক্ষাৎ ও সান্নিধ্য পেতে চান রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। রবিবার গুরুসদয় দত্ত রোডে অখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদের চিকিৎসক শাখার রাজ্য সম্মেলনে যোগ দেন তিনি। পরে রাজ্যপাল বলেন, ‘‘এক জন বাঙালি নোবেল পাওয়ায় আমি খুশি। সেই আনন্দের শরিক হতে চাই বলেই আমরা রাজভবনে ওঁকে সংবর্ধনা দিতে চেয়েছিলাম। অল্প সময়ের জন্য হলেও উনি রাজভবনে আসতে পারেন কিংবা আমি ওঁর বাড়ি যেতে পারি। সেই অনুযায়ী আমার কর্মসূচি বদলে নিতেও সমস্যা হবে না।’’

নোবেলজয়ীর ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে পীযূষ গয়াল, অনন্ত হেগড়ে, রাহুল সিংহের মতো বিজেপি নেতারা যে-ধরনের মন্তব্য করেছেন, তা কি ঠিক? ধনখড় বলেন, ‘‘যাঁরা মন্তব্য করছেন, তাঁদের জিজ্ঞাসা করুন। আমাকে প্রশ্ন করবেন না।’’ নিজের অবস্থান স্পষ্ট করে দিয়ে তিনি বলেন, ‘‘অভিজিৎবাবুর নোবেল প্রাপ্তির খবর পেয়ে আমিই সম্ভবত প্রথম ওঁর মাকে ফোন করে অভিনন্দন জানিয়েছি।’’

কাল, মঙ্গলবার বিকেলে অভিজিৎবাবুর কলকাতায় পৌঁছনোর কথা। মঙ্গল-বুধ শহরে কাটিয়ে তাঁর ফেরার উড়ান বৃহস্পতিবার ভোরে। অভিনন্দন জানানোর তালিকায় ‘সম্ভবত প্রথম’ শব্দবন্ধটির উপরে বিশেষ জোর দিয়ে রাজ্যপাল বলেন, ‘‘এ বার উনি খুব কম সময়ের জন্য কলকাতায় আসছেন। ওঁর মায়ের সঙ্গে দীর্ঘ ক্ষণ কথা হয়েছে। রাজভবনের কর্মীরাও তাঁর সঙ্গে কথা বলেছেন। কলকাতায় আসার পরে মায়ের কাছে আমার অনুভূতির কথা উনি নিশ্চয় শুনবেন। অল্প সময়ের জন্যও ওঁর সঙ্গে দেখা হলে গর্বিত বোধ করব।’’