আক্রমণে বিরোধীরা, হুঁশিয়ারি অভিষেকের
ভোটের মুখে সোনা-কাণ্ড নিয়ে বিরোধীরা সরব হয়েছে তৃণমূলের সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে। যাবতীয় অভিযোগ ‘ভিত্তিহীন’ দাবি করে অভিষেক এ বার বিরোধীদের পাল্টা হুঁশিয়ারি দিলেন। 
abhishek banerjee

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। —ফাইল চিত্র।

ভোটের মুখে সোনা-কাণ্ড নিয়ে বিরোধীরা সরব হয়েছে তৃণমূলের সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে। যাবতীয় অভিযোগ ‘ভিত্তিহীন’ দাবি করে অভিষেক এ বার বিরোধীদের পাল্টা হুঁশিয়ারি দিলেন। 

দিন কয়েক আগে কলকাতা বিমানবন্দরে বিধিবহির্ভূত ভাবে সোনা আনার অভিযোগে শুল্ক দফতর অভিষেকের স্ত্রীকে আটক করে বলে অভিযোগ। তৃণমূলের প্রভাবশালী নেতাকে জড়িয়ে এমন ঘটনা নিয়ে বিরোধীরা সোশ্যাল মিডিয়ায় আক্রমণ করেছেন অভিষেককে। ভোটের আগে বিরোধীরা ফায়দা তুলতে এ ভাবে রাজনীতি করছে বলে অভিষেকের অভি‌যোগ। বিজেপি, সিপিএম তৃণমূলের বিরুদ্ধে ব্যক্তিগত আক্রমণ শানাচ্ছে বলে তিনি দাবি করেন। 

গোটা ঘটনার নেপথ্যে বিজেপির চক্রান্ত বলে মন্তব্য করে অভিষেক বলেন, ‘‘অমিত শাহের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করেছিলাম। সে কারণে বিজেপি আমাকে, আমার স্ত্রীকে হেনস্থা করছে। ওদের সাহস থাকলে আমায় গ্রেফতার করুক।’’

আরও পড়ুন: দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯ 

বাম পরিষদীয় নেতা সুজন চক্রবর্তী এ নিয়ে টুইট করায় তাঁকে আইনজীবীর চিঠি পাঠিয়েছেন অভিষেক। রবিবার আইনজীবী বিকাশ ভট্টাচার্যকে পাশে নিয়ে সুজনবাবু বলেন, ‘‘চিঠি পাওয়ার ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে আমাকে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে বলা হয়েছে। ক্ষমা চাওয়ার প্রশ্নই নেই।’’ প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্রের দাবি, ‘‘এক জন সাংসদের স্ত্রীকে বিমানবন্দরে আটক করা নিয়ে এত কথা হচ্ছে। শুল্ক-সহ তদন্তকারী সংস্থা তথ্যপ্রমাণ দিয়ে গোটা চিত্র স্পষ্ট করুক।’’ বিজেপি সাংসদ স্বপন দাশগুপ্ত বলেন, ‘‘অভিষেকের স্ত্রীকে ছেড়ে দেওয়ার জন্য যে ভাবে পুলিশ শুল্ক কর্তাদের চাপ দিয়েছিল বলে অভিযোগ, তাতেই স্পষ্ট এ রাজ্যে অরাজকতা চলছে।’’ অভিষেক বিরোধীদের হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, ‘‘বিরোধীদের হয় অভিযোগ প্রমাণ করতে হবে, নয়তো আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’’

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত