• রাজদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

হঠাৎ খবর, তাড়াহুড়ো প্রশাসনের 

mbban
—ফাইল চিত্র।

তিনি আসবেন বলে কয়েক দিন ধরেই সাজ-সাজ রব ছিল প্রশাসনিক মহলে। কয়েক ঘণ্টার নোটিসে সেটাই বদলে গেল হুড়োহুড়িতে। পূর্ব-ঘোষিত সময়সূচির এক দিন আগেই, রবিবার দুপুরে বাঁকুড়ায় এলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। জেলা প্রশাসনের এক কর্তা বলেন, “আমরা প্রস্তুতি প্রায় সেরেই রেখেছিলাম। তাই মুখ্যমন্ত্রী আগাম এসে পড়লেও আমাদের কোনও সমস্যা হয়নি।”

রবিবার দুপুর সাড়ে ৩টে নাগাদ মুকুটমণিপুর লাগোয়া গোড়াবাড়ির হেলিপ্যাডে নামে মুখ্যমন্ত্রীর হেলিকপ্টার। সূত্রের খবর, মুখ্যমন্ত্রীর আগাম চলে আসা নিয়ে এ দিন সকাল পর্যন্ত জেলা প্রশাসনের কাছে কোনও খবর ছিল না। দুপুরে তাঁর আসার খবর পেয়েই দ্রুত মুকুটমণিপুরের রাস্তার পাশে পুলিশ মোতায়েন করা হয়। জেলা প্রশাসনের কর্তারা প্রায় ষাট কিলোমিটার উজিয়ে বাঁকুড়া থেকে মুকুটমণিপুর পৌঁছন।

মুখ্যমন্ত্রীর আসবেন বলে উদ্যানপালন দফতরের উদ্যোগে জেলায় চাষ হওয়া জার্ভেরা ফুল দিয়ে বাঁকুড়া সার্কিট হাউস সাজানোর কাজ চলছিল। মুকুটমণিপুরের রাস্তার উপরে আলপনা রং করার কাজ চলছিল। তড়িঘড়ি শেষ করা হয় সে সব। তবে জলাধারের জ়িরো পয়েন্টে ঢোকার মুখে মাটি, বাঁশ আর কাপড় দিয়ে পেঁচার মডেল তৈরির কাজ রবিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত শেষ হয়নি। শিল্পীরা জানাচ্ছেন, সোমবার দুপুরের মধ্যে কাজ সেরে ফেলা হবে বলে ঠিক ছিল। দ্রুত হাত চালিয়ে রবিবার রাতের মধ্যেই তাঁরা শেষ করার চেষ্টা করছেন। 

বাঁকুড়া জেলা পরিষদের মেন্টর অরূপ চক্রবর্তী বলেন,  ‘‘মুখ্যমন্ত্রী সেচ বাংলোর সামনে ভিড় দেখেই আমাকে নির্দেশ দেন ভিড় ফাঁকা করার। পর্যটকদের যাতে কোনও অসুবিধা না হয়, তা নিশ্চিত করতে বলেছেন।’’

মুখ্যমন্ত্রী আগাম জেলায় এসে পড়ায় তাঁর কর্মসূচিতেও বদল হয়েছে। প্রশাসনের একটি সূত্রে জানা যাচ্ছে, মঙ্গলবারের বদলে আজ, সোমবার খাতড়ার সিধু কানহু গ্রাউন্ডে সরকারি প্রকল্প প্রদান কর্মসূচি হওয়ার কথা। জেলা প্রশাসনের তরফে উপভোক্তাদের নিয়ে আসতে গাড়ি ‘বুক’ করা হয়েছে। এ দিনই গাড়ির মালিকদের সঙ্গে কথা বলে কর্মসূচি এগিয়ে আসার কথা জানানো হয়। 

প্রশাসনিক বৈঠক হওয়ার কথা ছিল সোমবার, খাতড়ার গুরুসদয় মঞ্চে। ঠিক হয়েছে, এক দিন পিছিয়ে তা মঙ্গলবার করা হবে। খাতড়ার গুরুসদয় মঞ্চের বদলে বাঁকুড়ার রবীন্দ্রভবনে প্রশাসনিক বৈঠকের আয়োজন করা হচ্ছে। সূত্রের খবর, সে দিন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে ভিডিয়ো কনফারেন্সে যোগ দেওয়ার কথা মুখ্যমন্ত্রীর। বাঁকুড়া থেকেই সেই কনফারেন্স সেরে দুপুর আড়াইটা নাগাদ প্রশাসনিক বৈঠক শুরু করতে পারেন। বুধবার বাঁকুড়া ১ ব্লকের সুনুকপাহাড়ি হাটতলার মাঠে দলীয় সভায় যোগ দেওয়ার কথা মুখ্যমন্ত্রীর। 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন