দ্বন্দ্বে জীর্ণ মালদহ জেলা তৃণমূলের দেখভাল এ বার নিজেই করবেন দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। জেলায় দলীয় পর্যবেক্ষক আপাতত কেউ থাকছেন না। দলীয় সূত্রে খবর, মঙ্গলবার মালদহ জেলার দলীয় নেতৃত্বের সঙ্গে বৈঠকে একথা তিনি নিজেই জানান। পাশাপাশি এও বলেন, দলের জেলা সভাপতি মৌসম নুরকে মেনেই মালদহ জেলায় দল ও সংগঠন করতে হবে। জেলায় দলের চেয়ারম্যান মোয়াজ্জেম হোসেনকে সঙ্গে নিয়ে মৌসমকে দ্রুত দলীয় জেলা ও ব্লক কমিটি গড়ার নির্দেশ দেন দলনেত্রী। 

পাশাপাশি, জেলার দুই পুরসভার নেতাদের নিজেদের মধ্যে ঝগড়া বন্ধ করে এক হয়ে চলার বার্তা দেন তিনি। এ ছাড়া, সকলকে এনআরসির বিরুদ্ধে জেলায় তুমুল আন্দোলন সংঘটিত করার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।  

তৃণমূল সূত্রে জানা গিয়েছে, এ দিনের দলীয় বৈঠকে দলীয় আদিবাসী সংগঠনের দায়িত্ব চুনিয়া মুর্মুর কাছ থেকে নিয়ে সরলা মুর্মুকে দেওয়া হয়েছে। দলের জেলা কিসান খেতমজুর সংগঠনের দায়িত্ব রঞ্জন সিংহের পরিবর্তে পেয়েছেন তজমুল হোসেন। এ ছাড়া জেলা শ্রমিক সংগঠনের সভাপতি মানব বন্দোপাধ্যায়কে বাড়তি সাংস্কৃতিক সংগঠন দেখতে বলা হয়েছে। এ দিকে দলীয় এই বৈঠকে তাঁকে ডাকা হয়নি বলে অভিযোগ তোলেন প্রাক্তন মন্ত্রী কৃষ্ণেন্দুনারায়ণ চৌধুরী। যদিও এই দাবি মানতে নারাজ জেলা নেতৃত্ব। 

মমতা দলীয় বৈঠক করবেন কিনা তা নিয়ে দোলাচল ছিল। শেষ পর্যন্ত, বিকেল পাঁচটা নাগাদ প্রশাসনিক বৈঠক স্থল দুর্গাকিঙ্কর সদনের পাশে সানাউল্লাহ মঞ্চে দলনেত্রী মালদহ জেলার দলীয় নেতাদের নিয়ে সাংগঠনিক বৈঠক করেন। দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, বৈঠকে মমতা জানান, এই জেলায় দলের পর্যবেক্ষক এখন কেউ নেই। সাধন পাণ্ডে থাকছেন না। পরিবহণ মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী সময় দিতে পারবেন না। ফলে দলনেত্রী নিজেই মালদহ জেলার দেখভাল করবেন। তিনি আরও জানান, এই জেলায় দলের জেলা সভাপতি মৌসম নুরকে মেনেই কাজ করতে হবে। মৌসম সরাসরি তার সঙ্গে যোগাযোগ করে দলের কাজ করবেন।