আগামী ২২ জুলাই নবান্ন সভাঘরে দলের জেলা পরিষদ সদস্যদের বৈঠকে ডাকলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সমস্ত জেলার প্রায় ৮০০ জেলা পরিষদ সদস্য-সদস্যার সঙ্গে সরাসরি কথা বলবেন মুখ্যমন্ত্রী। আগামী সোমবার বেলা ১টায় এই বৈঠক হওয়ার কথা বলে পঞ্চায়েত দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে। 

পঞ্চায়েত মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায় বলেন,‘‘মুখ্যমন্ত্রী পঞ্চায়েতের কাজকর্ম নিয়ে কথা বলতে চান। তৃণমূলস্তরে উন্নয়ন কেমন হবে, তা জেলা পরিষদ সদস্যদের বুঝিয়ে দেবেন তিনি।’’ 

এর আগে পুরসভার কাউন্সিলরদের নিয়ে বৈঠকে বসেছেন মুখ্যমন্ত্রী।  গত ১৬ জুনের সেই বৈঠকের কাটমানি প্রসঙ্গ তুলে পুর প্রতিনিধিদের তা ফেরত দিতে বলেছিলেন মমতা। তার দু’দিন পর থেকেই রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় কাটমানি ফেরত চেয়ে বিক্ষোভ শুরু হয়েছে। ১৫ জুলাই পর্যন্ত  রাজ্যে ২১০টি কাটমানি বিক্ষোভ হয়েছে। তা থামার লক্ষণও নেই। বেশ কিছু জায়গায় পঞ্চায়েতের জনপ্রতিনিধিরা গ্রামের বাসিন্দাদের কাটমানির টাকা ফেরতও দিয়েছেন। যা দেখে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের কটাক্ষ,‘‘রাজ্যে এখন মানিব্যাক প্রকল্প শুরু হয়েছে।’’

এমন আবহেই জেলা পরিষদ সদস্যদের সঙ্গে সরাসরি কথা বলবেন মুখ্যমন্ত্রী। পুর প্রতিনিধিদের কাটমানি ফেরতের নির্দেশ দিলেও বিক্ষোভ সবচেয়ে বেশি হয়েছে পঞ্চায়েত প্রতিনিধিদের ঘিরেই। ফলে জেলা পরিষদ সদস্যদের মুখ্যমন্ত্রী কী বলেন, তা জানতে মুখিয়ে আছেন সকলেই। 

এক জেলা পরিষদ সভাধিপতির কথায়,‘‘লোকসভা ভোটের পর থেকে সে ভাবে পঞ্চায়েত সক্রিয় হয়ে কাজ করতে পারছে না। অনেক স্থানেই গ্রাম পঞ্চায়েত অফিসে বিজেপির গুণ্ডাগিরি চলছে। ফলে মুখ্যমন্ত্রী যে পথ নির্দেশ দেবেন তাতে পঞ্চায়েত পরিচালনা অনেক সহজ হবে।’’