• জগন্নাথ চট্টোপাধ্যায়
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

সম্মতির অপেক্ষায় সৌরভের জমি-প্রস্তাব

Sourav Ganguly
সৌরভের আবেদন হিডকো থেকে নগরোন্নয়ন দফতর, অর্থ দফতর হয়ে নবান্নের উচ্চ পর্যায়ে ‘বিবেচনার’ জন্য দেওয়া হয়েছিল বলে নবান্ন সূত্রের খবর।

নিউটাউনের ২ একর জমি ফিরিয়ে দিতে চেয়ে হিডকোর কাছে আবেদন জানিয়েছেন ক্রিকেটার সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। কিন্তু তাঁর সেই প্রস্তাবে ‘হ্যাঁ’ বা ‘না’ কিছুই বলছে না সরকার। গত চার মাস ধরে সৌরভের প্রস্তাব পড়ে রয়েছে অর্থ দফতর ঘুরে নবান্নের উচ্চ পর্যায়ে। কার্যত তা ঝুলে রয়েছে বলে জানান নবান্ন কর্তাদের একাংশ। 

সাধারণ নিয়মে, কোনও ব্যক্তি বা সংস্থা জমি ফিরিয়ে দিতে চাইলে টাকা মিটিয়ে সেই জমি ফেরত নিতে এত সময় লাগার কথা নয় বলে প্রশাসন সূত্রের খবর। সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি বা সংস্থা জমি ফেরানোর পরিবর্তে যে আর্থিক অঙ্ক দাবি করেন, সে সব নিয়ে সরকার সহমত না হলে ফাইল চালাচালি চলে কিছুদিন। যদি কোনও জমি মন্ত্রিসভার অনুমোদন ক্রমে দেওয়া হয়, তা হলে ফেরত নেওয়ার ক্ষেত্রেও মন্ত্রিসভায় প্রস্তাবটি অনুমোদন করিয়ে নিতে হয়। সৌরভের জমিটির ক্ষেত্রেও তা হওয়ার কথা। কিন্তু সৌরভের আবেদন হিডকো থেকে নগরোন্নয়ন দফতর, অর্থ দফতর হয়ে নবান্নের উচ্চ পর্যায়ে ‘বিবেচনার’ জন্য দেওয়া হয়েছিল বলে নবান্ন সূত্রের খবর। কিন্তু ‘বিবেচনা’ সম্পূর্ণ হয়নি বলেই নবান্নের কর্তাদের দাবি। 

সরকারি সূত্রে খবর, ২০১৩-র মে’তে সৌরভকে নিউটাউনের অ্যাকশন এরিয়া-১ অঞ্চলে একটি উচ্চ মাধ্যমিক স্কুল গড়ার জন্য ২ একর জমি দিয়েছিল রাজ্য মন্ত্রিসভা। জমির দাম ১১ কোটি টাকা হলেও সরকার অর্ধেক দামে প্রাক্তন ক্রিকেট অধিনায়ককে জমিটি দিতে সম্মত হয়। কারণ, সৌরভ তাঁর স্কুলে গরিব বাচ্চাদের জন্য আসন সংখ্যার একাংশ সংরক্ষণ করার কথা জানিয়েছিলেন। সেই কারণেই গরিব মেধাবীদের ভাল স্কুলে পড়ার ব্যবস্থা করার শর্তেই রাজ্য মন্ত্রিসভা জমির দাম কমিয়েছিল বলে দাবি করেছিল সরকার। 

আরও পড়ুন: কাজের ‘স্বাধীনতা’ চান ক্ষুব্ধ শুভেন্দু, আগামী সপ্তাহে ফের আলোচনায় সৌগত

আরও পড়ুন: রাতভর আলোচনার পর শোভন-বৈশাখী নিয়ে ফের তাল কাটল সকালের এক ফোনে

এর আগে ২০০৯ সালে বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য সরকার সল্টলেকের সিএ ব্লকে সৌরভকে ৬৩ কাটা জমি দিয়েছিল। সেটিও স্কুল তৈরির জন্যই নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু মামলা মোকদ্দমার জেরে সেই জমি সৌরভ ছেড়ে দিতে বাধ্য হন। সল্টলেক বা নিউটাউনের জমি প্রাপ্তির মধ্যে কোনও আপাত সম্পর্ক না থাকলেও সরকারি কর্তাদের একাংশের ধারণা, সল্টলেকের জমিটি হাতে না পাওয়ার বিকল্প হিসাবেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকার নিউটাউনে তাঁকে জমির ব্যবস্থা করে দিয়েছিল। কিন্তু গত সাত বছরে নিউটাউনে স্কুল গড়ার ব্যাপারে এগোতে পারেননি সৌরভ। তার মাঝেই ক্রিকেটারের বিজেপিতে যোগ দেওয়ার চর্চা শুরু হয়। 

গত অগস্টে সৌরভ হিডকোর কাছে নিউটাউনের জমিটি ফেরত দিতে চেয়ে আবেদন করেন। হিডকো প্রস্তাবটি নগরোন্নয়ন দফতরে পাঠিয়ে দেন। সেখান থেকে জমির মূল্যমান, কত টাকা ফেরত দেওয়া হবে ইত্যাদি ঠিক করার জন্য প্রস্তাবটি যায় অর্থ দফতরে। অর্থ দফতর ‘আর্থিক’ বিষয়গুলি দেখে মন্ত্রিসভার চূড়ান্ত অনুমোদন নেওয়ার আগে নবান্নের শীর্ষস্তরে প্রস্তাবটি পাঠায়। মাঝে সৌরভ একবার মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে নবান্নও গিয়েছিলেন। সেখানে জমির প্রসঙ্গ নিয়ে আলোচনাও হয়েছিল বলে শোনা যায়। তার পর থেকে এখনও সরকার সৌরভকে টাকা মিটিয়ে নিউটাউনের জমিটি নিতে মন্ত্রিসভায় প্রস্তাব পেশ করেনি। সৌরভও অবশ্য জমিটি রেখে দেওয়ার ব্যাপারে সরকারকে কিছু জানিয়েছেন বলে হিডকো কর্তারা জানেন না। তাঁরা নবান্ন থেকে ফাইল ফেরার প্রতীক্ষায়।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন