একাধিক বেআইনি অর্থলগ্নি সংস্থা সংক্রান্ত মামলায় তৃণমূলের দুই সাংসদ তাপস পাল ও সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় এখন ওড়িশায় জেলবন্দি হিসেবে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। বুধবার প্রয়াগ নামে আরও একটি বেআইনি অর্থলগ্নি সংস্থার যে দুই কর্ণধারকে গ্রেফতার করেছে সিবিআই, তাঁদেরও ভুবনেশ্বরে হাজির করাতে ‌বৃহস্পতিবার আদালতে আর্জি জানাল ওই তদন্তকারী সংস্থা।

প্রয়াগের বিরুদ্ধে অভিযোগ, বেশি মুনাফার আশ্বাস দিয়ে তারা বাজার থেকে ২ হাজার ৮৬২ কোটি টাকা তুলেছে। বৃহস্পতিবার ওই সংস্থার দুই কর্তা বাসুদেব বাগচি ও অভীক বাগচিকে বিধাননগর আদালতে হাজির করা হলে সিবিআইয়ের আইনজীবী সাত দিনের ‘ট্রানজিট রিমান্ড’-এর আবেদন করেন। বিচারক সুব্রত ঘোষ মন্তব্য করেন, ‘‘অভিযুক্তদের কি জাহাজে নিয়ে যাওয়া হবে?’’ এর পরে অবশ্য দু’জনকে ২০ মার্চের মধ্যে ওড়িশার আদালতে পেশ করার নির্দেশ দেন।

ওড়িশার বালিয়াপাল থানায় প্রয়াগের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। সেই মামলাতেই দুই কর্তাকে ইতিমধ্যে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ দিন ধৃতদের পক্ষের আইনজীবী জানান, প্রয়াগ বাজার থেকে ১৫০০ কোটি টাকা তুলেছে। তার মধ্যে ৫০০ কোটি টাকা ফেরত দিয়েছে।