বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে তুলোধোনা করে ‘দ্য অ্যাক্সিডেন্টাল প্রাইম মিনিস্টার’ ছবির প্রসঙ্গে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংহ ও তাঁর দলের পাশে দাঁড়ালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কংগ্রেসের সুরেই তাঁর অভিযোগ, লোকসভা ভোটের আগে রাজনৈতিক কারণেই ‘বিকৃত’ একটি ছবি বাজারে আনা হয়েছে। মোদীকে কটাক্ষ করে মমতা মন্তব্য করেছেন, এর পরে ‘ডিজাস্ট্রাস প্রাইম মিনিস্টার’ নামে আরও একটা ছবি তৈরি হবে! বারাসতে শুক্রবার মুখ্যমন্ত্রী এই কথা বলার কিছু আগেই কলকাতায় কংগ্রেস কর্মী-সমর্থকদের বিক্ষোভের জেরে হিন্দ আইনক্স-এ বন্ধ হয়ে গিয়েছে ওই ছবির প্রদর্শন। রাতে কংগ্রেসের কিছু কর্মীর বিক্ষোভের জেরে পার্ক সার্কাসের ‘কোয়েস্ট’ মলের প্রেক্ষাগৃহ ছেড়েও বেরিয়ে যেতে হয়েছে দর্শকদের।

বারাসতে ২৩ তম যাত্রা উৎসবের উদ্বোধনী মঞ্চ থেকে মমতা এ দিন আহ্বান জানিয়েছেন বাস্তব জীবনকে ভিত্তি করে যাত্রা তৈরি করার। সেই সূত্রেই তিনি বলেছেন, ‘‘কেউ কেউ তো এখন রাজনৈতিক যাত্রা করছে। ভোটের আগে অ্যাক্সিডেন্টাল পি এম নামে একটা সিনেমা তৈরি করেছে। এটা বিকৃত! এটা অন্যায়!’’ তাঁর আরও বক্তব্য,  ‘‘আমি কংগ্রেস ছেড়ে বেরিয়ে এসেছি। তৃণমূল করেছি। কংগ্রেসের সঙ্গে ফারাক আছে। তবে এটা অন্যায়।’’ তার পরেই প্রধানমন্ত্রী মোদীর নাম না করে মুখ্যমন্ত্রীর মন্তব্য, ‘‘যেমন দেখাবেন, তেমন দেখবেন! একটা ডিজাস্ট্রাস পি এম-ও তৈরি হবে!’’ পরে নবান্নেও মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‘রাজনীতির অধঃপতন হয়েছে। এটা ঠিক নয়। সনিয়া, রাজীব গাঁধী সম্পর্কে বিরূপ মন্তব্য করা হয়েছে শুনেছি। এটা করার দরকার ছিল না।’’

আরও পড়ুন: ‘মনমোহন-চিত্রে’ দর্শক ডেকেও নিরাশ বিজেপি

আগামী ১৯ জানুয়ারি ব্রিগেডে বিজেপি-বিরোধী সভায় অন্য আঞ্চলিক দলের সঙ্গে কংগ্রেসকেও আমন্ত্রণ জানিয়েছে তৃণমূল। তার আগে এ দিন মমতার এই অবস্থানকে তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে।

কলকাতার হিন্দ-আইনক্সে এ দিন ‘দ্য অ্যাক্সি়ডেন্টাল প্রাইম মিনিস্টার’-এর প্রথম শোয়ের আগে মধ্য কলকাতার কংগ্রেস কর্মী-সমর্থকেরা হলের বাইরে বিক্ষোভ দেখান। পোড়ানো হয় মোদীর কুশপুতুল। শো শুরু হওয়ার কিছু পরে বিক্ষোভকারীদের একাংশ হলেও ঢুকে পড়েন। বেরিয়ে আসেন দর্শকেরা। বউবাজার থানা থেকে পুলিশ বাহিনী এসে বিক্ষোভকারীদের সরিয়ে দেয়। পরে হিন্দ কর্তৃপক্ষ জানান, নিরাপত্তার কারণে আপাতত শো বন্ধ রাখা হয়েছে।

মধ্য কলকাতার কংগ্রেস নেতা সুমন পালের বক্তব্য, ‘‘শিল্পীর স্বাধীনতার নামে এই ছবিতে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী-সহ আমাদের শীর্ষ নেতৃত্বকে হেয় করা হয়েছে। নেতাদের অবমাননার প্রতিবাদে কর্মী হিসেবে আমরা বিক্ষোভ করেছি।’’ এআইসিসি এবং প্রদেশ কংগ্রেস নেতৃত্বের তরফে অবশ্য এমন বিক্ষোভকে অনুমোদন করা হচ্ছে না। প্রদেশ কংগ্রেসের কমিউনিকেশন সেলের চেয়ারম্যান অমিতাভ চক্রবর্তী বলেন, ‘‘আগাগোড়া বিজেপির রাজনৈতিক প্রচারের জন্য এমন ছবি তৈরি করা হয়েছে। মনমোহন সিংহকে যাঁরা হেয় করছেন, তাঁরা দেশকেই অসম্মান করছেন। তবে আমরা বাক্ স্বাধীনতার পক্ষে। দেশের মানুষের উপরেই আমরা বিষয়টি ছেড়ে দিচ্ছি।’’ কংগ্রেস কর্মীদের একাংশ ‘কোয়েস্ট’ মলে আইনক্স-এর পর্দাও ছিঁড়ে দিয়েছেন বলে অভিযোগ। মাল্টিপ্লেক্সে পর্দা ছেঁড়ার মতো জিনিসপত্র নিয়ে কী ভাবে তাঁরা ঢুকে পড়লেন, তা খতিয়ে দেখছেন হল কর্তৃপক্ষ। রাতেই প্লেক্স ঘিরে পুলিশি নিরাপত্তা বসেছে। তবে ছবি ঘিরে কোনও বিক্ষোভের সঙ্গে তাঁদের সম্পর্ক নেই বলে জানিয়েছেন প্রদেশ যুব কংগ্রেস সভাপতি শাদাব খান।