আজও আনন্দমেলা-র (সম্পা: সিজার বাগচী) আকর্ষণ শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়ের উপন্যাস।  তাঁর ‘আসমানির চর’ পশুপাখিকে ভালবেসে প্রকৃতিকে রক্ষা করার কথাই বলে। দেবাশিস বন্দ্যোপাধ্যায় মোবাইলের মারণ-খেলার বাস্তবতার সঙ্গে ভাষার বুননে আশ্চর্য এক কল্পজগৎ তৈরি করেছেন। দীপান্বিতা রায়ের লেখায় বিশ্বের চরম উন্নতির সঙ্গে ভয়ঙ্কর বিপদের ইঙ্গিত, তবু মানবতাই জয়ী হয় শেষ পর্যন্ত। আরও নানা স্বাদের গল্প-উপন্যাস, নানা রকম কমিকস, খেলাধুলো, বিজ্ঞান, পুরাণের গল্প, বিচিত্র প্রসঙ্গ পত্রিকার মেজাজ ধরে রেখেছে।  

ঝালাপালা-য় (সম্পা: অশোককুমার মিত্র) দুই বাংলার শিশু-কিশোর পত্রিকার দুশো বছরের ৭১টি গল্প। প্রচেত গুপ্তর ‘আগুন লাফ’, সৈকত মুখোপাধ্যায়ের ‘ছোটো রাজার পোষ্য’, অনিতা অগ্নিহোত্রীর ‘অন্নজ্যেঠীর পোষা বাঘ’, হাসান আজিজুল হকের ‘চরু’, ইমদাদুল হক মিলনের ‘দোয়েলের মন ভালো নেই’ মন ভাল করে। মুর্শিদাবাদ রঘুনাথগঞ্জের ছোটদের কলরব (সম্পা: মেধস ঋষি বন্দ্যোপাধ্যায়) পত্রিকাটিতে গল্প, উপন্যাস, রহস্য গল্প, ভূতের গল্প, ছড়া কবিতার সঙ্গে তোমাদের পাতা, ভ্রমণ, নাটক, শব্দধাঁধা, কুইজ় ইত্যাদি বিষয়গুলিও ধরা হয়েছে। শাশ্বতী চন্দের মজার গল্প ‘পিকুর কল্পনা শক্তি’ ও অনন্যা দাশের রহস্য গল্প ‘বিচার’ বেশ ভাল। মায়াকানন (সম্পা: অর্ক পৈতণ্ডী) এ বারও বিষয় বৈচিত্রে নিজস্বতা বজায় রেখেছে। উপন্যাস থেকে গল্প, অনুবাদ গল্প, কমিকস, ছবিতে ক্লাসিক, কবিতা, খেলা, প্রবন্ধ, কুইজ় সবই স্থান পেয়েছে। ছবিতে ক্লাসিক বিভাগে রেভারেন্ড লালবিহারী দে-র গল্প ‘ভীতু ভূত’ ও সত্যজিৎ রায়ের গল্প ‘মোল্লা নাসিরুদ্দীন’ পাঠকদের চোখ টানবে। তাপস মুখোপাধ্যায় সম্পাদিত কিশোর দুনিয়া-র এ বারের সম্পদ বিশেষ রচনা বিভাগের লেখা— সমুদ্র বসুর ‘১২৫ বছরের আলোয় মেঘনাদ সাহা’, মানসরঞ্জন গুপ্তর ‘অবাক যুদ্ধ’, মহুয়া ভট্টাচার্য গোস্বামীর ‘ছোটদের প্রিয় সাহিত্যিক উপেন্দ্রকিশোর’। সোনালি স্বপ্ন-তে (সম্পা: সুবলচন্দ্র নস্কর) ছড়া কবিতা, গল্প, নিবন্ধের আয়োজন। খুদে পাঠকদের জন্য রয়েছে ‘অবুঝ-সবুজের পাতা’। প্রথম বছরের ঋক নির্ভীক (সম্পা: মউমিতা ভট্টাচার্য) সেজে উঠেছে অনেক ভাল লেখায়— স্যর আশুতোষকে নিয়ে চিত্ততোষ মুখোপাধ্যায় কি আনসার উল হকের উপেক্ষিত শিশুসাহিত্যিক কৃষ্ণদয়াল বসু প্রসঙ্গ।

শিশু কিশোর আকাদেমির চির সবুজ লেখা (সম্পা: অর্পিতা ঘোষ) নানা রকম মজায় ঠাসা, জমজমাট ব্যাপার। উপন্যাস, ছোটগল্প, ছড়া-কবিতার সঙ্গে আছে নানা বিষয়ের প্রবন্ধ, খেলার জগতের গোপন কথা, পাতায় পাতায় ছবি। আছে ছোটদের পছন্দমতো কমিকস, ছবির মজা, ধাঁধা, তাদের নিজেদের লেখা-আঁকা।

শুধু বিষয় বৈচিত্রেই নয়, মুদ্রণ, প্রচ্ছদ, লে-আউটেও চমৎকারিত্বের দাবিদার খেলা আর গল্প (সম্পা: উৎপল চৌধুরী)। গল্প-উপন্যাস-ছড়া-খেলার পাশাপাশি ছ’টি বিশেষ রচনা ও প্রবন্ধে। হাওড়া ব্রিজের পঁচাত্তর বছর, ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো নিয়ে তথ্যসমৃদ্ধ রচনা আকর্ষণ করে। চাঁদের হাসি (সম্পা: ছন্দা চট্টোপাধ্যায়) কবিতা, গল্প, বিশেষ রচনা, কুইজ়, শব্দ সাজাও প্রভৃতিতে ভরা। শ্যামলকান্তি দাশের দীর্ঘ ছড়া-কবিতা ‘ছন্দা মাসির বাড়ি মল্লারপুর’, আশিস কর্মকারের গল্প ‘চাঁদু’ পড়ে খুদে পাঠকরা মজা পাবে। ছিমছাম, সুচিন্তিত, সুনির্মিত কাগজ আলোর ফুলকি (সম্পা: আনসার উল হক ও স্বপন পাল) ছোটদের কথা যথার্থই ভেবেছে— অনেক ছড়া, প্রবন্ধ, ছোট গল্প, সাক্ষাৎকার, খেলা, স্বাস্থ্য-ভ্রমণ-কমিকস। নীরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তীর ছড়া ‘ওই ছেলেটা’, শঙ্খ ঘোষের ছড়া ‘রূপকথা’, পবিত্র সরকারের ছড়া ‘অদ্ভুত লাগে’, আশিস কর্মকারের গল্প ‘কালো হাত রহস্য’, জ্যোতির্ময় সর্দারের গল্প ‘ভূতে ভর’ বিশেষ ভাবে নজর কাড়ে।

শুকতারা-য় (সম্পা: রূপা মজুমদার) খুদে পাঠকদের আনন্দ দেওয়ার বিপুল আয়োজন। উপন্যাস গল্প ফিচার কমিকস কবিতা-ছড়া ও ক্রীড়াঙ্গন— নানা বিভাগে সুসজ্জিত। নজর টানে সৈকত মুখোপাধ্যায়ের উপন্যাস ‘পাঁচ-নম্বর স্পেসিমেন’, সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায়ের গল্প ‘রামুদা’, নবনীতা দেব সেনের গল্প ‘লালগড়ের মা-বাঘ’, শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়ের ‘রাজবাড়ির খোঁজে’ এবং শেখর বসুর গল্প ‘ছবির ভূত’ প্রভৃতি। 

ডিঙিনৌকো (সম্পা: সুনির্মল চক্রবর্তী) এক কথায় অসাধারণ! যেমন কাগজের মান, বিষয় বৈচিত্র, তেমনি অলঙ্করণ, মুদ্রণ। দেবাশীষ দেবের অসামান্য প্রচ্ছদ। বড়রাও ফিরে পাবেন তাঁদের হারিয়ে যাওয়া শৈশব। মন-মাতানো উপন্যাস, গল্প, নাটক, খেলা, আলাপচারিতা, পাখির কথা, কমিকস, ছড়া-কবিতা ইত্যাদির সমারোহ। রঙবেরঙ-এ (সম্পা: চন্দন নাথ) গল্প-উপন্যাস-কবিতা তো আছেই, আছে বেশ কিছু মনকাড়া বিভাগও। ‘জীবনকথা’ বিভাগে চন্দনা চক্রবর্তীর কলমে উঠে এসেছে ‘সাবিত্রীবাঈ ফুলে’, তেমনি ‘বিজ্ঞান ও পরিবেশ’ বিভাগে ধীরেন্দ্রনাথ সুর লিখেছেন ‘পরাস্ত কর প্লাস্টিক দূষণ’। দোয়েল পত্রিকা–য় (সম্পা: অধীর বিশ্বাস) দুই বাংলার কবি ও লেখকরা গল্প-উপন্যাস-প্রবন্ধ-কবিতা তুলে ধরেছেন। রতনতনু ঘাটীর কবিতা ‘স্বপ্ন বলতে ওল্ড এজ হোমে’, বিমলেন্দু চক্রবর্তীর উপন্যাস ‘স্বপ্নের এপার ওপার’, পার্থজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের ‘‘কিশোর’ ছোটদের প্রথম দৈনিক’’ মন টানে। ‘‘ও তো বেড়ালের বাচ্চা... গোরুর দুধ খেতে যাবে কেন!’’— সুনীল জানার সরস গল্প ‘বাঙালি বেড়াল’ শারদীয় হৈহৈ-তে (সম্পা: দেবব্রত নিয়োগী)। ছড়া-গল্পে জমজমাট। পাকিস্তানের সাহিত্যিকদের নিয়ে নিবন্ধ। উনত্রিশটি গল্প, পঁচিশটি ছড়া, চারটি গদ্য, একটি কমিক্স এবং ছোটদের লেখা-আঁকার বিভাগ দিয়ে ভরা টাপুরটুপুর (সম্পা: মধুসূদন ঘাটী)। অচিন্ত্যকুমার চক্রবর্তীর গল্প ‘ফ্যাশন’, বাণীব্রত চক্রবর্তীর ‘মনের জানালা খুলে রেখো’, বলরাম বসাকের ‘বাতাস যেও না’ ভাল লাগে।

কিচিরমিচির (সম্পা: সুদীপ্ত চক্রবর্তী) গল্প উপন্যাস ছড়ার সঙ্গে ‘কমিকস ও অন্যান্য’ বিভাগে সমৃদ্ধ— কৌশিক মজুমদার, অয়ন রাহা, ইন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায়ের লেখা আকর্ষণীয়। পঞ্চাশ বছর পেরিয়ে শিশুমেলা (সম্পা: অরুণ চট্টোপাধ্যায়) আজও অমলিন। গল্প নাটিকা ছড়া লোককথা আর তাল-মেলানো স্নিগ্ধ অলঙ্করণ মন ভরিয়ে দেয়। 

সন্দেশ-এ (সম্পা: সন্দীপ রায়) বিশেষ আকর্ষণ সিগনেট-খ্যাত ডি কে বা দিলীপকুমার গুপ্তর জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে বেশ কয়েকটি লেখা। উপন্যাস গল্প কবিতা ভ্রমণ খেলা কমিকসের সঙ্গে প্রবন্ধ ফিচার স্মৃতিকথা। নবনীতা দেব সেনের ‘কবির সঙ্গে দেখা’ অনুপম রবীন্দ্রস্মৃতি। কিশোর ভারতী-তে (সম্পা: ত্রিদিবকুমার চট্টোপাধ্যায়) ‘ফিরে দেখা’ গল্প কমিকস কবিতা ষাট-সত্তর দশকের মায়ামেদুর। দীনেশচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের অপ্রকাশিত গল্প, সত্যজিৎ রায়কে নিয়ে টিনু আনন্দের চমৎকার স্মৃতিচারণ, উপন্যাস গল্প কবিতা নতুন কমিকসের ডালি।

উন্নয়নের চাপে প্রকৃতি হারিয়ে যাচ্ছে, এক দিকে তারই প্রতিশোধের কাহিনি দেবজ্যোতি ভট্টাচার্যের কলমে, আর ছোটদের প্রকৃতির কাছে পৌঁছে দেওয়ার জরুরি কথন জয়ন্ত দে-র লেখায়। এ বারের আমপাতা জামপাতা (সম্পা: দেবাশিস্‌ বসু) ভরা গল্প কবিতা কমিকস, আর বিশেষ রচনা অশোককুমার মিত্র দেবাশিস সেন-সহ অনেকের।