Advertisement
২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
Telangana Assembly Election 2023

তেলঙ্গানায় ‘সূর্যোদয়’, ভারতের সর্বকনিষ্ঠ রাজ্যের প্রথম কংগ্রেসি মুখ্যমন্ত্রী রেবন্ত রেড্ডি

তেলঙ্গানায় রেবন্ত রেড্ডিই মুখ্যমন্ত্রী, জানিয়ে দিল কংগ্রেস।

সম্পাদনা: অসীম

আনন্দবাজার অনলাইন ডেস্ক
তেলঙ্গানা শেষ আপডেট: ০৫ ডিসেম্বর ২০২৩ ২০:০৬
Share: Save:

একচ্ছত্র ক্ষমতার অবসান। পরিবর্তন আনল তেলঙ্গানা। কে চন্দ্রশেখর রাওয়ের দল ভারত রাষ্ট্র সমিতির (বিআরএস) হার। ক্ষমতায় কংগ্রেস। অবশ্যই প্রথম বার। ২০১৪ সালে জন্ম হয় তেলঙ্গানার। বয়স ১০ বছর। ভারতের এই নবীনতম রাজ্যের অভিভাবক হবেন কে? দৌড়ে এগিয়ে রেবন্ত রেড্ডি। বিআরএস প্রার্থী নরেন্দ্র রেড্ডিকে ৩২ হাজার ভোটে হারিয়ে কোদঙ্গল (Kodangal) বিধানসভা থেকে জয়ী। রেবন্ত রেড্ডির প্রাপ্ত ভোট ১ লক্ষ ৭ হাজার ৪২৯। অতীতে তেলুগু দেশম পার্টি থেকে দু’বারের বিধায়ক থেকেছেন রেবন্ত। অন্ধ্রপ্রদেশ বিধানসভার প্রাক্তন সদস্য ২০২১ সালে কংগ্রেসে যোগদান করেই দলের দায়িত্বে। তাঁর নেতৃত্বেই তেলঙ্গানায় ক্ষমতায় এসেছে কংগ্রেস। মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার দৌড়ে শাসকদলের সিংহভাগেরই ভোট রেবন্তের দিকেই।

১১৯ আসনের বিধানসভায় কংগ্রেসের ৬৫ আসন জয়ে অবদান রেখেছেন ভাট্টি বিক্রমার্ক মাল্লুও। নির্বাচন পূর্ববর্তী লড়াইয়ে রাজ্য জুড়ে ১ হাজার ৪০০ কিলোমিটার পদযাত্রা করেছিলেন তিনি। রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের একাংশের মতে বিক্রমার্ক মাল্লুর নেতৃত্বে আয়োজিত তেলঙ্গানা কংগ্রেসের ‘পিপল্‌স মার্চ’ ভোটের বৈতরণী পার করতে বিশেষ ভূমিকা নিয়েছে। দলের অনেকেই ৬২ বছরের এই নেতাকে মসনদে দেখতে চাইছেন।

রেবন্ত এবং বিক্রমার্ক ছাড়াও, দৌড়ে রয়েছেন তেলঙ্গানা কংগ্রেসের প্রাক্তন সভাপতি উত্তমকুমার রেড্ডি। ২০২১ সালে তাঁর হাত থেকেই ব্যাটন নিয়ে রেবন্ত রেড্ডির হাতে দেওয়া হয়। আর তাঁর দায়িত্ব নেওয়ার তিন বছরের মধ্যেই রাজ্যে ক্ষমতায় কংগ্রেস। তবে তেলঙ্গানায় দলের সাংগঠনিক ক্ষমতা বৃদ্ধিতে উত্তমকুমার নিঃসন্দেহেই অবিসংবাদিত। তাই তাঁকে একেবারেই উপেক্ষা করা যায় না, মত রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের একাংশের।

তবে শেষ পর্যন্ত রেবন্ত রেড্ডিকেই মুখ্যমন্ত্রী করার কথা জানাল কংগ্রেস। সংস্কৃতে রেবন্ত শব্দের অর্থ সূর্য। যার হাত ধরে আলোর দিশারি হল কংগ্রেস, সেই ‘সূর্যে’র নামে রাহুল গান্ধীর সিলমোহর ছিল আগেই, মঙ্গলবার পাকাপাকিভাবে জানানো হল নাম।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement

Share this article

CLOSE