Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৭ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

উঠল প্রেসিডেন্সির আন্দোলন, অবরোধ উঠলেও আন্দোলন চলবে, জানালেন পড়ুয়ারা

হিন্দু হস্টেলের তিন, চার ও পাঁচ নম্বর ওয়ার্ডের কাজ দ্রুত শেষ করতে হবে, এই দাবি নিয়ে শুরু হয়েছিল পড়ুয়াদের বিক্ষোভ।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ০৬ মার্চ ২০২০ ১২:০৫
রাস্তার উপর বসে প্রেসিডেন্সি পড়ুয়াদের বিক্ষোভ। নিজস্ব চিত্র।

রাস্তার উপর বসে প্রেসিডেন্সি পড়ুয়াদের বিক্ষোভ। নিজস্ব চিত্র।

আন্দোলন তুলে নিলেন প্রেসিডেন্সির পড়ুয়ারা। রাস্তার উপর বসে হিন্দু হস্টেলের সংস্কার-সহ নানা দাবিতে অবস্থান বিক্ষোভ করছিলেন প্রেসিডেন্সির পড়ুয়ারা। সাধারণ মানুষের অসুবিধার কথা মাথায় রেখেই আন্দোলন তুলে নেওয়া হল বলে জানিয়েছেন পড়ুয়ারা।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টায় কলেজ স্ট্রিটের চার মাথার মোড়ে অবস্থানে বসেছিলেন বিক্ষোভরত পড়ুয়ারা। এমন একটি গুরুত্বপূর্ণ মোড়ে অবস্থান করায় যান চলাচলে ব্যাপক প্রভাব পড়ে। উত্তর কলকাতা-সহ হাওড়া ও শিয়ালদহগামী যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। চরম ভোগান্তির মুখে পড়তে হয় যাত্রীদের। যান চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় হেঁটেই যাতায়াত করতে হয়েছে তাঁদের।

শুক্রবার তাঁরা এক ঘণ্টার জন্য অবস্থান তুলে নিলেও ফের প্রেসিডেন্সির সামনে গিয়ে বসে পড়েন। ঘটনাস্থলে যান পুলিশের শীর্ষ কর্তারা। পড়ুয়াদের বুঝিয়ে অবস্থান তোলার চেষ্টা করেন তাঁরা। কিন্তু সকালের দিকে পড়ুয়ারা এ দিনও সাফ জানিয়ে দেন, কর্তৃপক্ষ দাবি মেটানোর আশ্বাস না দেওয়া পর্যন্ত তাঁরা উঠবেন না। বিক্ষোভরত পড়ুয়াদের সঙ্গে নিত্যযাত্রীরা কথা বলে অবস্থান তুলে নেওয়ার অনুরোধ জানান। অবস্থানের জেরে এলাকার বই, জামাকাপড়-সহ বিভিন্ন দোকানের বেচাকেনায় প্রভাব পড়ে। ফলে ক্ষুব্ধ ছিলেন এলাকার ব্যবসায়ীরাও। এর পর বিকেলের দিকে অবস্থান তুলে নেওয়ার ঘোষণা করা হয়। তবে আন্দোলন প্রত্যাহার করা হয়নি বলেও জানানো হয়েছে পড়ুয়াদের তরফে।

Advertisement

আরও পড়ুন: রাজ্য জুড়ে আজও বৃষ্টির চোখরাঙানি, রবিবার থেকে আবহাওয়া উন্নতির সম্ভাবনা

আরও পড়ুন: মৃত্যু বেড়ে সাড়ে তিন হাজার, চিনের বাইরে ১৭ গুণ দ্রুত ছড়াচ্ছে করোনাভাইরাস, রিপোর্ট হু-র

হিন্দু হস্টেলের তিন, চার ও পাঁচ নম্বর ওয়ার্ডের কাজ দ্রুত শেষ করতে হবে, এই দাবি নিয়ে শুরু হয়েছিল পড়ুয়াদের বিক্ষোভ। পরে সেই তালিকায় যোগ হয় আরও কিছু দাবি। হস্টেলে রান্নার দায়িত্বে থাকা কর্মীদের কেন বসিয়ে দেওয়া হয়েছে, সেই প্রশ্ন তোলেন আবাসিকেরা। দাবি উঠেছে কর্মী-সংখ্যা বাড়ানোরও। এই দাবিগুলো নিয়েই দীর্ঘ দিন ধরেই আন্দোলন চালাচ্ছেন পড়ুয়ারা। তাঁদের অভিযোগ, হস্টেলের একাংশ সংস্কার হলেও পুরো সংস্কার করা হয়নি। আরও অভিযোগ, বার বার কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানানো সত্ত্বেও উদ্যোগী হননি তাঁরা। দাবিগুলো কর্তৃপক্ষের নজরে আনতে বাধ্য হয়েই তাঁদের এই আন্দোলন।



Tags:
Presidency University Hindu Hostelহিন্দু হস্টেল

আরও পড়ুন

Advertisement