Advertisement
২৭ নভেম্বর ২০২২

পুলিশকর্তাকে আসামি: স্যার দেড় লাখ টাকা আপনাকেই তো দিলাম

অভিযুক্ত এক জন। আর তাঁকে ঘিরে বসে বেশ কয়েক জন পুলিশ অফিসার। উচ্চপদস্থ কর্তাদের সঙ্গে থানার অফিসারেরাও।পুলিশেরই একাংশ জানিয়েছে, জেরা পর্ব যত এগিয়েছে তত ঘাম জমেছে নির্দিষ্ট এক জন পুলিশ অফিসারের কপালে।

প্রবাল গঙ্গোপাধ্যায়
শেষ আপডেট: ৩০ মার্চ ২০১৭ ০১:৩৬
Share: Save:

অভিযুক্ত এক জন। আর তাঁকে ঘিরে বসে বেশ কয়েক জন পুলিশ অফিসার। উচ্চপদস্থ কর্তাদের সঙ্গে থানার অফিসারেরাও।

Advertisement

পুলিশেরই একাংশ জানিয়েছে, জেরা পর্ব যত এগিয়েছে তত ঘাম জমেছে নির্দিষ্ট এক জন পুলিশ অফিসারের কপালে। পুলিশের দাবি, গ্রেফতার হওয়া ওই অভিযুক্ত ততক্ষণে বেশ কয়েক জন ছোট ও মাঝারি মাপের অফিসারদের দেখিয়ে, তাঁর সঙ্গে ওই অফিসারদের ‘ঘনিষ্ঠতা’ রয়েছে বলেও জানিয়ে দিয়েছেন।

বিধাননগর পুলিশ কমিশনারেটের এক কর্তার অফিসে এমন এক জেরা পর্ব চলাকালীন ওই অভিযুক্ত আচমকাই বোমা ফাটিয়ে বসেন বলে জানিয়েছেন কমিশনারেটের জন অফিসার। পুলিশ সূত্রের খবর, থানার এক অফিসারের দিকে ওই অভিযুক্ত সরাসরি আঙুল তুলে বলেন, ‘‘স্যার আপনাকে তো টাকা দিয়েছিলাম। দেড় লক্ষ টাকা।’’

কমিশনারেটের এক পদস্থ কর্তার দাবি অনুযায়ী, ওই পুলিশ অফিসার অভিযুক্তের দাবির বিরুদ্ধে কোনও জোরালো প্রতিবাদ করতে পারেননি। মাথা নীচু করে বসেছিলেন। ইতিমধ্যেই পুলিশ খোঁজ নিয়ে জেনেছে, গত ফেব্রুয়ারি মাসে ওই অভিযুক্তের বাড়ির একটি অনুষ্ঠানে ওই পুলিশ অফিসার উপস্থিত ছিলেন।

Advertisement

আরও পড়ুন: এ পারে স্কুল, ও পারে বার

গত শনিবার এই জেরা পর্বের পরে চার দিন কেটে গেলেও এখনও অভিযুক্ত ওই অফিসারকে থানা থেকে সরানো হয়নি। কেন? এ বিষয়ে কমিশনারেটের এক শীর্ষ কর্তা বলেন, ‘‘অভিযোগ কেউ কারও বিরুদ্ধে করতেই পারেন। সেটা কতটা সত্যি তাও খতিয়ে দেখা হবে। জেরার বিস্তারিত তথ্য রাজ্য পুলিশের শীর্ষ কর্তাদের দু’-এক জনের কানে পৌঁছেছে।’’

মুখে যাই বলুন না, কর্তারা আগে থেকেই যে এই ‘আঁতাত’-এর কথা জানতেন, তা স্বীকার করে নিয়েছেন পুলিশের একাংশ। সেই কারণে, অভিযুক্ত ওই ব্যক্তি ধীরাজ সরকার ওরফে বুম্বাকে গত সপ্তাহে গ্রেফতার করার পরে জেরা করে নাজেহাল করে দেন গোয়েন্দারা। কমিশনারেটের কোন কোন পুলিশ অফিসারের সঙ্গে তাঁর যোগাযোগ এবং সেই যোগাযোগ কতটা লেনদেন নির্ভর তা বার বার জানতে চান গোয়েন্দারা।

পুলিশ সূত্রের খবর, সেই সময়েই জেরার মুখে ভেঙে পড়ে বুম্বা কমিশনারেটের একটি থানার এক অফিসারের নাম বলেন। পুলিশের দাবি, ওই অফিসারকে তিনি দেড় লক্ষ টাকা দিয়েছিলেন বলেও বুম্বা গোয়েন্দাদের জানান। গোয়েন্দারা বুম্বার কাছে জানতে চান ওই আধিকারিককে ডেকে মুখোমুখি বসালে তা তিনি বলতে পারবেন কি না। বুম্বা গোয়েন্দাদের কথায় সম্মতি দেন। সেই মতো শনিবার উভয় পক্ষকে মুখোমুখি বসানো হয় বলে পুলিশের একাংশের দাবি।

সম্প্রতি সল্টলেকের পাঁচ নম্বর সেক্টরে পানশালায় গোলমাল কাণ্ডেই উঠে এসেছে বুম্বার নাম। ওই পানশালায় দোলের আগের রাতে সাড়ে চারটে পর্যন্ত অবাধে খানাপিনা চলে। পরে সেখানে হাঙ্গামা বাধলে সেই সূত্রে পুলিশ ‘জানতে পারে’ ওই পানশালা গভীর রাত পর্যন্ত খোলা ছিল। পুলিশের ভূমিকা নিয়ে তখনই প্রশ্ন ওঠে। পরে দিন্নি থেকে ওই পানশালার মালিককে গ্রেফতার করে। ওই ঘটনায় পানশালার মালিক জগজিৎ সিংহকে গ্রেফতার করে পুলিশ। গোয়েন্দারা জানিয়েছেন, জগজিৎই জেরায় বুম্বার নাম বলেন। তদন্তকারীদের দাবি, ওই পানশালায় সারা রাত মদ বিক্রি, তা নিয়ে গোলমাল — এ সবই নিজের ঘনিষ্ঠ পুলিশ অফিসারদের দিয়ে সামলে দেবেন বলে জগজিৎকে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন বুম্বা।

বুম্বা নিজেকে তৃণমূল সরকারের এক প্রাক্তন মন্ত্রী ও কমিশনারেটের পদস্থ পুলিশ অফিসারদের ঘনিষ্ঠ বলে প্রকাশ্যেই দাবি করতেন বলে অভিযোগ।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.