Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৮ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

গ্রন্থাগার আবার সিপিএমের দখলে

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ফের জেলার একটি গ্রন্থাগারের দখল পেতে চলেছে সিপিএম। বান্দোয়ান জনসংযোগ লাইব্রেরির পরিচালন সমিতির নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল

নিজস্ব সংবাদদাতা
বান্দোয়ান ০২ মার্চ ২০১৬ ০১:১০
Save
Something isn't right! Please refresh.
Popup Close

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ফের জেলার একটি গ্রন্থাগারের দখল পেতে চলেছে সিপিএম। বান্দোয়ান জনসংযোগ লাইব্রেরির পরিচালন সমিতির নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল আগামী ৬ মার্চ। সোমবার পরিচালন সমিতির ১০টি আসনে প্রার্থীদের নামের তালিকা প্রকাশিত হয়েছে। সেই তালিকায় বিপক্ষ কোনও দলের প্রার্থীর নাম না থাকায় বিনা নির্বাচনেই পরিচালন সমিতির দখল আসতে চলেছে সিপিএমের হাতে।

সম্প্রতি জঙ্গলমহল এলাকার সমবায় সমিতি এবং গ্রন্থাগার পরিচালন সমিতির নির্বাচনে পরপর জয় লাভ করেছেন সিপিএম সমর্থিত প্রার্থীরা। এর আগে মানবাজার থানার ভালুবাসা পঞ্চায়েতের চেপুয়া বিবেকানন্দ লাইব্রেরির পরিচালন সমিতির নির্বাচনে তৃণমূল প্রার্থী দিতে না পারায় সিপিএম বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয় পেয়েছে । বোরো এবং বান্দোয়ান থানা এলাকার কয়েকটি সমবায় সমিতির নির্বাচনে শাসক দল প্রার্থীই দিতে পারেনি। কোথাও তৃণমূল প্রার্থী দিলেও নিরঙ্কুশ জয় পেয়েছেন সিপিএমের প্রার্থীরা। মানবাজার টাউন লাইব্রেরির নির্বাচনে হেরে যাওয়ার আশঙ্কায় নির্বাচন স্থগিত করে দিয়েছে এই অভিযোগে পথ অবরোধ করেন সিপিএম কর্মী সমর্থকেরা।

বিধানসভা নির্বাচনের আগে গ্রন্থাগার নির্বাচনে ধারাবাহিক ভাবে জয় পেয়ে স্বভাবতই খুশি জেলার সিপিএম নেতৃত্ব। মঙ্গলবার বান্দোয়ানের সিপিএম বিধায়ক সুশান্ত বেসরা বলেন, ‘‘এই দৃষ্টান্ত থেকেই বোঝা যায় শাসক দলের প্রতি মানুষের আস্থা তলানিতে ঠেকেছে।’’ এ দিন চেষ্টা করেও যোগাযোগ করা যায়নি তৃণমূলের বান্দোয়ান ব্লক সভাপতি রঘুনাথ মাঝির সঙ্গে। দলের যুব সভাপতি জগদীশ মাহাতো দাবি করেন, এই নির্বাচনের খবর তিনি জানেন না। তিনি বলেন, ‘‘আমি ওই লাইব্রেরির সদস্য। পরিচালন সমিতির নির্বাচনের কথা আমাকে কেউ জানাননি। বিষয়টি নিয়ে দলেও কোনও আলোচনা হয়নি।’’

Advertisement

অন্য দিকে, বান্দোয়ান জনসংযোগ লাইব্রেরির গ্রন্থাগারিক হায়দর আলির দাবি, গত ২৫ তারিখ ছিল মনোনয়ন পত্র জমা দেবার শেষ দিন। ২৬ তারিখ মনোনয়ন পত্রগুলি পরীক্ষা করা হয়েছে। ২৯ ফেব্রুয়ারি প্রকাশিত হয়েছে বৈধ প্রার্থীতালিকা। হায়দর আলির দাবি, নিয়ম মেনেই নির্বাচনের যাবতীয় প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে।



Something isn't right! Please refresh.

Advertisement