Advertisement
১৫ জুলাই ২০২৪

দক্ষিণে যেতে আরও ট্রেন

বুধবার দক্ষিণ-পূর্ব রেলসূত্রে জানানো হয়েছে, খড়গপুর-ভেল্লিপুরম এক্সপ্রেসের যাত্রাপথ পুরুলিয়া পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।

নিজস্ব সংবাদদাতা
আদ্রা শেষ আপডেট: ২৪ জানুয়ারি ২০১৯ ০২:২৫
Share: Save:

পুরুলিয়াবাসীর জন্য সুখবর। চিকিৎসার প্রয়োজনে হোক বা অন্য কোনও কারণে— দক্ষিণে যাওয়ার জন্য বাড়তি একটি ট্রেন পেলেন তাঁরা।

বুধবার দক্ষিণ-পূর্ব রেলসূত্রে জানানো হয়েছে, খড়গপুর-ভেল্লিপুরম এক্সপ্রেসের যাত্রাপথ পুরুলিয়া পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। সপ্তাহে একদিন ওই এক্সপ্রেস খড়গপুরের পরিবর্তে পুরুলিয়া স্টেশন থেকে ছাড়বে। পুরুলিয়া স্টেশনেই যাত্রা শেষ করবে ট্রেনটি। তবে সপ্তাহের কোন দিন ট্রেনটি ছাড়বে সেই ঘোষণা করেননি রেল কর্তৃপক্ষ।

আদ্রার ডিভিশনাল রেলওয়ে ম্যানেজার শারদকুমার শ্রীবাস্তব বুধবার বলেন, ‘‘এদিনই খড়গপুর-ভেল্লিপুরম এক্সপ্রেস ট্রেনটিকে সপ্তাহে একদিন পুরুলিয়া পর্যন্ত চালানোর সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন উচ্চতর কর্তৃপক্ষ। আমরা বেশ কয়েকবার কর্তৃপক্ষের কাছে এই প্রস্তাব পাঠিয়েছিলাম।” রেলসূত্রের খবর, ট্রেনটি পুরুলিয়া স্টেশন থেকে ছেড়ে বাঁকুড়া এবং খড়গপুর ছুঁয়ে ভেল্লিপুরম যাবে। এতে দুই জেলার যাত্রীদের সুবিধা হবে।

ভেল্লিপুরম যাওয়ার পথেই পড়ে ভেলোর। পুরুলিয়ার বহু মানুষ ভেলোরে যান চিকিৎসার জন্য। পড়াশোনা বা কাজের জন্য দক্ষিণে পাড়ি দেন পুরুলিয়ার বহু বাসিন্দা। কিন্তু পর্যাপ্ত সংখ্যক ট্রেন না থাকায় ভুগতে হয় তাঁদের। পুরুলিয়া ছুঁয়ে ভেল্লিপুরম যায়, এমন দূরপাল্লার ট্রেনের সংখ্যা তিনটি।

তাদের মধ্যে মাত্র একটি (পুরুলিয়া-ভেল্লিপুরম এক্সপ্রেস) ছাড়ে পুরুলিয়ার আদ্রা স্টেশন থেকে। অন্য দু’টি (পটনা-এর্নাকুলাম এক্সপ্রেস এবং ডিব্রুগড়-কন্যাকুমারী এক্সপ্রেস) আদ্রা ছুঁয়ে দক্ষিণের রাজ্যে যায়। এবার দক্ষিণে যাওয়ার জন্য একটি বাড়তি ট্রেন মেলায় ভোগান্তি কিছুটা কমবে বলে আশা যাত্রীদের।

খড়গপুর-ভেল্লিপুরম এক্সপ্রেসের যাত্রাপথ পুরুলিয়া পর্যন্ত বাড়ানোর দাবি ক্রমশ তীব্র হচ্ছিল। পুরুলিয়ার সাংসদ মৃগাঙ্ক মাহাতো এবং রেলকর্মী সংগঠন ‘মেনস কংগ্রেসের’ নেতা সুব্রত দে দীর্ঘদিন ধরেই রেল কর্তৃপক্ষের কাছে এই বিষয় নিয়ে তদ্বির করছিলেন।

পরে পুরুলিয়া-ভেল্লিপুরম এক্সপ্রেসে একটি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত কামরা জুড়ে দিয়েছিলেন রেল কর্তৃপক্ষ। তবে ‘এসি’ কামরার ভাড়া বেশি হওয়ায় তাতে বিশেষ কোনও সুবিধা হয়নি জেলাবাসীর।

রেল কর্তপক্ষের এদিনের ঘোষণায় খুশি মৃগাঙ্ক। তিনি বলেন, ‘‘পুরুলিয়া থেকে বহু মানুষ চিকিৎসা-সহ অন্যান্য কাজে দক্ষিণ ভারতে যায়। একটি মাত্র ট্রেন থাকায় রিজার্ভেশন পেতে তাঁদের সমস্যায় পড়তে হয়। রেলের সাথে বৈঠকে বহুবার তথ্যপ্রমাণ দিয়ে সমস্যা সমাধানের অনুরোধ জানিয়েছিলাম। এতে পুরুলিয়ার বাসিন্দাদের সুবিধা হবে।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE