Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৬ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied

আন্তর্জাতিক

টানা ১২ দিন ট্র্যাফিক জ্যাম! শুনেছেন কখনও!

নিজস্ব প্রতিবেদন
০৪ অক্টোবর ২০১৮ ০৯:৪০
রোজ অফিসে আসার সময় বা ক্লান্ত অবস্থায় বাড়ি ফেরার সময় আপনি কি ট্র্যাফিক জ্যামে বিরক্ত হন? মনে হয়, উফফ, এরকম জ্যাম বোধহয় বিশ্বের আর কোথাও হয় না? তা হলে আপনাকে বলে রাখি, একেবারে ভুল ভাবছেন। ইতিহাসে এরকম কিছু ট্র্যাফিক জ্যাম ঘটেছে যার কাছে গড়িয়াহাটের মোড় কিংবা শ্যামবাজার, গুরুগ্রাম বা দিল্লি, নিদেনপক্ষে বেঙ্গালুরু বা মুম্বইয়ের জ্যাম নেহাত শিশু।

ইন্দোনেশিয়ার ব্রেবেসে ২০ কিমি জুড়ে যানজট হয়েছিল ইদের ছুটির সময়। বাড়ি ফিরছিলেন প্রত্যেকেই। ২০১৬ সালের জুলাইয়ে টানা তিন দিনের এই যানজটের ফলে হৃদরোগে আক্রাম্ত হয়ে মারা যান ১২ জন।
Advertisement
ব্রাজিলের সাও পাওলোতে ২০১৩ সালের নভেম্বর মাসে প্রায় ৩০৯ কিমি জুড়ে বিস্তৃত হয়েছিল এই যানজট। চলেছিল প্রায় ৪৮ ঘণ্টা। ছুটিতে বাড়ি ফিরছিলেন বাসিন্দারা। তাই এই যানজট।

নিউ ইয়র্কের রাস্তায় ৫০ হাজারের বদলে ৫ লক্ষ মানুষ! ১৯৬৯ সালের অগস্টে উডস্টক ফেস্টিভ্যাল। ৩২ কিমি যানজট, তাও প্রায় তিন দিন টানা। মিউজিক ফেস্টিভ্যালের জন্য শিল্পীদের নিয়ে আসা হয়েছিল কপ্টারে চাপিয়ে।
Advertisement
বেজিং-তিব্বত এক্সপ্রেসওয়েতে টানা ১২দিন ধরে স্থায়ী ছিল এই যানজট। ২০১০ সালের অগস্টের ঘটনা।

বার্লিন দেওয়াল ভাঙল। জুড়ল পূর্ব ও পশ্চিম জার্মানি। ১৯৯০ সালের এপ্রিল মাসে দু’দিক থেকে প্রায় এক কোটি আশি লক্ষ গাড়ি বেরিয়ে পড়েছিল রাস্তায়। প্রত্যেকেই বন্ধু ও প্রিয়জনের সঙ্গে দেখা করতে চেয়েছিলেন। এদিকে রাস্তা দিয়ে যাওয়ার কথা পাঁচ লক্ষ গাড়ি। টানা ৪৮ কিমি ধরে ৪৮ ঘণ্টা স্থায়ী ছিল এই যানজট।

২০০৫ সালের সেপ্টেম্বরে আমেরিকার হিউস্টনে প্রায় ১৬১ কিমি জুড়ে তৈরি হয়েছিল এই যানজট। হারিকেন রিটার আতঙ্কে ঘর ছেড়ে নিরাপদ জায়গায় আশ্রয় নিতে যাচ্ছিলেন প্রায় আড়াই কোটি বাসিন্দা।

১৯৮০ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে আবহাওয়ার কারণে প্রায় ১৭৫ কিমি রাস্তাজুড়ে প্যারিসে এই ভয়াবহ যানজট পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল। একাধিক মানুষ ছুটিতে বাড়ি ফিরছিলেন তখন।

রাশিয়ার মস্কো থেকে সেন্ট পিটার্সবার্গ পর্যন্ত প্রায় ২০১ কিমি রাস্তা জুড়ে ছিল এই যানজট। ২০১২ সালের নভেম্বর মাসে তুষারঝড়ের কারণেই তৈরি হয়েছিল এই পরিস্থিতি।

২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বর ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের ঘটনার পর নিউ ইয়র্ক শহরে টানা বেশ কয়েক দিন ভয়াবহ পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল রাস্তাঘাটের। কারণ শহরে বেশ কয়েকটি সেতু ও সুড়ঙ্গ পথে যাতাযাতে নিষেধাজ্ঞা ছিল। এমারজেন্সি গাড়ির ক্ষেত্রে এক মাত্র নিষেধাজ্ঞা ছিল না। এ দিকে সাধারণদের যাতায়াতের জন্য যানবাহন বন্ধ ছিল।

টাইফুনের আতঙ্কে বাড়ি ছাড়ছিলেন এক দল বাসিন্দা, অপর দিকে ছুটি থাকায় বাড়ি ফিরছিলেন অন্যরা। ১৯৯০ সালের অগস্ট মাসে টোকিওতে এই কারণেই প্রায় ১৩৫ কিমি দীর্ঘ একটি যানজট তৈরি হয়েছিল। আটকে ছিল ১৫ হাজার গাড়ি।

চিনের বেজিং-হংকং-ম্যাকাও এক্সপ্রেসওয়েতে হাজারেরও বেশি গাড়ি দাঁড়িয়েছিল প্রায় ১০ ঘণ্টা। ২০১৫ সালের অক্টোবরে একটি নতুন চেক পয়েন্ট তৈরির কারণেই এই যানজট। যেটি ৫০টি রাস্তাকে ২০টি রাস্তার সঙ্গে যুক্ত করেছে।

২০১১ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে তুষারঝড়ের ফলে শিকাগোর রাস্তায় জমে গিয়েছিল প্রায় ৫১ সেন্টিমিটার পুরু বরফ। ১২ ঘণ্টার ঝড়ে যানজট শুধু নয়, গাড়িগুলি রাস্তায় বরফে ডুবে যাওয়ার মতো অবস্থা হয়েছিল।