দেশে ফিরতে চাওয়া  রোহিঙ্গা শরণার্থীদের প্রথম দফার তালিকা মায়ানমারের হাতে তুলে দিল ঢাকা। রোহিঙ্গাদের দেশে ফেরানোর প্রক্রিয়া শুরুর জন্য ঢাকায় এসেছেন মায়ানমারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী খ শোয়ে। শুক্রবার তিনি বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের সঙ্গে দেখা করেন। বৈঠকের পরে আসাদুজ্জামান জানান, দু’দেশের চুক্তির পরে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া ১১ লক্ষ মায়ানমারের নাগরিকের তালিকা তাঁরা তৈরি করেছেন। তবে প্রথম দফায় ফেরানোর জন্য ১,৬৭৩টি পরিবারের ৮,০৩২ জনের তালিকা মায়ানমারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। 

রোহিঙ্গা জঙ্গি সংগঠন ‘আরসা’ ২৪ অগস্ট রাতে গণহত্যা চালানোর পরে মায়ানমারের সেনা বাহিনী অভিযান শুরু করে। তাতে ঘরছাড়া হয়ে দু’মাসে প্রায় ৭ লক্ষ শরণার্থী কক্সবাজার-টেকনাফ সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে ঢোকে। এর আগে থেকে আরও অন্তত ৪ লক্ষ রোহিঙ্গা শরণার্থী বাংলাদেশে বসবাস করছিল। এই শরণার্থীদের দেশে ফেরাতে ২৩ নভেম্বর মায়ানমার সরকার বাংলাদেশের সঙ্গে চুক্তি করে। তার ভিত্তিতেই এ দিন প্রথম দফার শরণার্থীর তালিকা হাতে পেল মায়ানমার। তাদের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এ দিন বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতির সঙ্গে দেখা করে জানান, শরণার্থীদের ফেরত নেওয়ার বিষয়ে তাঁরা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। তবে রাষ্ট্রপুঞ্জের সাধারণ পরিষদের প্রেসিডেন্ট মিরোস্লাভ লাজাক বৃহস্পতিবার বলেন, রোহিঙ্গাদের মানবিক বিপর্যয় মোকাবিলায় আন্তর্জাতিক মহলকে আরও তৎপর হতে হবে। শরণার্থীদের আশ্রয় দেওয়া ও ফেরানোর বিষয়ে ঢাকার ভূমিকার তিনি প্রশংসা করেন।