‘বুলবুলি’ এল ‘বুলবুল’-এর তাণ্ডবের মধ্যেই। ভয়ঙ্কর ঝড় যখন আছড়ে পড়ছিল বাগেরহাটে, তখন মধ্যরাত পেরনোর কিছু পরেই মোংলার মিঠাখালি এটিসি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের আশ্রয়কেন্দ্রে কান ফাটানো কান্নায় সকলকে চমকে দিল বুলবুলি। জানিয়ে দিল, সে এসে গিয়েছে। ঝড়ের তাণ্ডব ভুলে তখন বুলবুলির মা হনুফা বেগমের উপরেই নজর সকলের।

মোংলা উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা রাহাত মান্নান পরে শিশুটির জন্মের খবর দেন সংবাদমাধ্যমকে। জানান, আশ্রয়কেন্দ্রে থাকা সকলের সঙ্গে আলোচনা করেই বাবা বায়েজিদ শিকদার কন্যাশিশুটির নাম রেখেছেন বুলবুলি। রাহাত এও জানিয়েছেন, ভাষ্য, শিশুটির জন্মের সময় আশ্রয়কেন্দ্রে মা হনুফা বেগমের অবস্থা ছিল সঙ্কটাপন্ন। তার জন্য আগেই মোংলা পরিবার পরিকল্পনা অফিস থেকে ধাত্রী এবং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে চিকিৎসক পাঠানো হয়েছিল আশ্রয়কেন্দ্রে। বুলবুলির বাবা পেশায় ডেকরেটর শ্রমিক।

রাহাত জানিয়েছেন, জেলা প্রশাসকের নির্দেশে প্রসূতিকে ২০ হাজার টাকা দেওয়ার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন: ‘ঝড় এলেই বা কী? না এলেই বা কী?’