Advertisement
০৭ ডিসেম্বর ২০২২
Digital Service Tax

বৈষম্যের অভিযোগ ওড়াল ভারত

ভারতে ব্যবসা করা বিদেশি ই-কমার্স সংস্থাগুলির উপর ২% ডিজিটাল পরিষেবা কর বসিয়েছে কেন্দ্র।

প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি।

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি শেষ আপডেট: ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ০৫:৪৩
Share: Save:

ডিজিটাল পরিষেবা করকে (ডিএসটি) আমেরিকার ই-কমার্স সংস্থাগুলির বিরুদ্ধে ভারতের বৈষম্যমূলক পদক্ষেপ তকমা দিয়েছিল সে দেশের ব্যবসায়িক প্রতিনিধিদের তদন্তমূলক রিপোর্ট (ইউএসটিআর)। বুধবার সেই অভিযোগ খারিজ করলেন কেন্দ্রীয় বাণিজ্য সচিব অনুপ ওয়াধওয়ান। তাঁর পাল্টা জবাব, ভারতে বিদেশি ই-কমার্স সংস্থাগুলি যেহেতু ব্যবসা করে অনেক টাকা আয় করে, তাই সেই আয়ে সরকারের কর বসানোর পদক্ষেপ যুক্তিসঙ্গতই। সারা বিশ্বের আর্থিক উন্নতির লক্ষ্যে তৈরি ৩৭টি সদস্য দেশের সংগঠন ওইসিডি-ও সেই নীতির পক্ষেই সওয়াল করে।

Advertisement

ভারতে ব্যবসা করা বিদেশি ই-কমার্স সংস্থাগুলির উপর ২% ডিজিটাল পরিষেবা কর বসিয়েছে কেন্দ্র। যা কার্যকর হয়েছে গত বছরের ১ এপ্রিল থেকে। আর তাতেই ক্ষুব্ধ আমেরিকা। এ নিয়ে তদন্ত চালিয়েছেন সে দেশের ব্যবসায়িক প্রতিনিধিরা। ভারতের বাণিজ্য মন্ত্রক অবশ্য বার বারই দাবি করছে, এই কর বসানোর লক্ষ্য সমান সমান প্রতিযোগিতার জমি তৈরি করে দেওয়া। যে কারণে দেশীয় সমস্ত সংস্থাই করের আওতায় আসে। তবে আমেরিকার বাণিজ্য মহলের দাবি, ডিএসটিতে সব থেকে বেশি ক্ষতি হচ্ছে তাদের দেশের ই-কমার্স সংস্থাগুলির। এই পদক্ষেপ আন্তর্জাতিক কর নীতিরও বিরোধী।

এ দিন ওয়াধওয়ান বলেন, ‘‘আমরা আমেরিকার এই বক্তব্যের সঙ্গে সহমত নই। নির্দিষ্ট কোনও অঞ্চল থেকে কেউ যদি কোটি কোটি ডলার আয় করে আর্থিক ভাবে লাভবান হয়, তা হলে সেখানে তাকে কর দিতেই হবে। ওইসিডি-ও সেই পথেই হাঁটছে।’’ তাঁর তোপ, কিছু দেশ এই নীতির প্রতিবাদ করছে কারণ এখানে ডিজিটাল ব্যবসায় বিরাট কর্তৃত্ব ফলায় তারা, সেটা ফেসবুক, গুগল কিংবা অ্যামাজ়ন, যে-ই হোক।

Advertisement

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.