নোটবন্দির পরে প্রায় সব বাতিল নোটই রিজার্ভ ব্যাঙ্কের ঘরে ফিরেছে। মাঝখান থেকে ধাক্কা খেয়েছে ক্ষুদ্র, ছোট ও মাঝারি শিল্প। যা নিয়ে নরেন্দ্র মোদী সরকারের উদ্দেশে আক্রমণ শানাচ্ছেন বিরোধীরা। এই অবস্থায় কংগ্রেসকে বিঁধতে অনাদায়ি ঋণকে হাতিয়ার করেছেন প্রধানমন্ত্রী। জানিয়েছেন, অনুৎপাদক সম্পদে পরিণত হওয়া কোনও ঋণই তাদের আমলে দেওয়া হয়নি। সেই বক্তব্যের পাল্টা আক্রমণ শানাতে কংগ্রেস বলল, অনাদায়ি ঋণ এনডিএর আমলেও বেড়েছে। তা বেড়েছে খাস ছোট শিল্পে।

তথ্য জানার অধিকারে করা এক প্রশ্নের উত্তরে জানা গিয়েছে, ২০১৪-১৫ অর্থবর্ষে ছোট শিল্পে ঋণের পরিমাণ ছিল ৯.৮২ লক্ষ কোটি টাকা। সেই সময়ে অনাদায়ি ঋণের অঙ্ক ছিল ৬৩ হাজার কোটি, মোট ঋণের ৬.৪%। ২০১৮ সালের ৩১ মার্চ অনাদায়ি ঋণ দাঁড়িয়েছে ৯৮.৫ হাজার কোটি। মোট ঋণের ৯.৪%।

কংগ্রেস নেতা জয়রাম রমেশের বক্তব্য, ‘‘বিজেপির আমলে তো ছোট শিল্পের অনাদায়ি ঋণও লাফিয়ে বাড়ছে। আসলে নোটবন্দির মাধ্যমে অর্থনীতির দফরফা করে ছেড়েছে তারা। এখন আগের সরকারের ঘাড়ে দায় চাপানোর চেষ্টা করছে।’’

অনাদায়ি ঋণ

• ২০১৫: ৬৩,০৩৫

• ২০১৬: ৭৪,১৩৩

• ২০১৭: ৮২,৩৮২

• ২০১৮: ৯৮,৫০০

•  ২০১৫ সালে অনাদায়ী ঋণের হার ৬.৪%। ২০১৮-এ ৯.৪%

* ছোট শিল্পে। হিসেব কোটি টাকায়