সস্তায় অশোধিত তেল আমদানি করতে দিল্লিতে বিশেষ দফতর খুলল রাষ্ট্রায়ত্ত ইন্ডিয়ান অয়েল (আইওসি)। সংস্থা সূত্রের খবর, এর ফলে আন্তর্জাতিক বাজারে দাম কমলে সঙ্গে সঙ্গে (রিয়েল টাইম) সস্তায় সেই তেল কেনা অনেকটাই সহজ হবে তাদের পক্ষে। সহজ হবে বিভিন্ন বিক্রেতার সঙ্গে দাম নিয়ে দরাদরিও। এখন চালু পদ্ধতিতে এ সব সুবিধা মেলে না। সংস্থার ডিরেক্টর (ফিনান্স) এ কে শর্মা  ওই দফতর খোলার কথা জানান। গত ২৫ মার্চ নাইজেরিয়া থেকে সেই অফিস মারফত ১০ লক্ষ ব্যারেল তেল কিনেছে সংস্থাটি। তবে তা কতটা সস্তা পড়েছে তা খোলসা করেনি।

চিরাচরিত প্রথায় আন্তর্জাতিক দরপত্রে বা সিঙ্গাপুরে তাদের  অফিসের মাধ্যমে স্বল্পমেয়াদি দরপত্রের ভিত্তিতে তেল কেনে আইওসি। বিক্রেতারা দরপত্রের ভিত্তিতে তেলের দর দেয়। সর্বনিম্ন দরটিকেই বেছে নিতে হয় সংস্থাকে। সিঙ্গাপুরের দরপত্রের ক্ষেত্রে বিক্রেতারা প্রস্তাব দেওয়ার দু’ঘণ্টার মধ্যে ও চিরাচরিত পদ্ধতির আন্তর্জাতিক দরপত্রের ক্ষেত্রে ১০ ঘণ্টার মধ্যে তেল কেনার সিদ্ধান্ত নিতে হয় তাদের। সংশ্লিষ্ট মহলের মতে, এর মধ্যে দাম কমলে সেই সুবিধা নেওয়ার সুযোগ থাকে না। তেমনই দাম নিয়ে দরাদরিরও সুযোগ থাকে না। 

কোনও একটি নির্দিষ্ট সময়ের সঙ্গে সঙ্গেই তেল কেনার জন্য এ বার দিল্লি অফিসেই প্রয়োজনীয় সফটওয়্যার ও আলাদা টিম তৈরি করেছে  আইওসি। দাবি, ওই ব্যবস্থায় যেমন বিভিন্ন বিক্রেতার সঙ্গে তেলের দাম নিয়ে দরাদরির সুযোগ পাবে সংস্থা, তেমনই দ্রুত সিদ্ধান্তও নিতে পারবে তারা। রিলায়্যান্স ইন্ডাস্ট্রিজের তেল কেনা ও রফতানির জন্য এমন স্থানীয় অফিস রয়েছে। রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থাগুলির মধ্যে আইওসি-ই প্রথম তা চালু করল।

সংবাদ সংস্থা