×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৬ এপ্রিল ২০২১ ই-পেপার

গ্যাসের দাম বাড়লেও এখনও থমকে ভর্তুকি

নিজস্ব সংবাদদাতা 
কলকাতা ২৪ ডিসেম্বর ২০২০ ০৩:৩৮
প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি।

ডিসেম্বরে ১৪.২ কেজির রান্নার গ্যাস সিলিন্ডারের দাম দু’দফায় মোট ১০০ টাকা বেড়েছে। কলকাতায় দাম হয়েছে ৭২০.৫০ টাকা। দাম বাড়ার ফলে ভর্তুকি বাড়ে কি না, তার অপেক্ষায় ছিলেন গ্রাহকেরা। কিন্তু বুধবার পর্যন্ত ভর্তুকি ১ পয়সাও বাড়েনি।

গ্যাসের দাম বাড়ানো হলেও ভর্তুকির অঙ্ক আলাদা ভাবে ঘোষণা করেনি কেন্দ্র। গ্রাহকদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে ভর্তুকির টাকা জমা পড়ার পরে তা নজরে আসছে। তার ভিত্তিতেই ডিস্ট্রিবিউটর ও গ্রাহকদের একাংশের দাবি, গত তিন মাস ধরে ভর্তুকি দাঁড়িয়ে রয়েছে একই জায়গায়। ফলে বেশি দরে সিলিন্ডার কেনার পরেও নামমাত্র ভর্তুকি জুটেছে আমজনতার। কলকাতায় তা ১৯.৫৭ টাকা। প্রশ্ন উঠছে, অতিমারির সময়ে অধিকাংশ মানুষই যখন আর্থিক ভাবে কোণঠাসা তখন ভর্তুকির সিলিন্ডারের দরও কী ভাবে বাড়িয়ে দিল সরকার?

ইন্ডেন ডিস্ট্রিবিউটর্স অ্যাসোসিয়েশনের (পশ্চিমবঙ্গ) প্রেসিডেন্ট বিজনবিহারী বিশ্বাস জানান, কলকাতায় বর্ধিত দামে (৭২০.৫০ টাকা) সিলিন্ডার কেনার পরেও ভর্তুকি মিলছে ১৯.৫৭ টাকা। সিলিন্ডার কেনার পরে গ্রাহকদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে ওই অঙ্কই জমা পড়েছে। একটি সূত্রের দাবি, পরে ভর্তুকি বৃদ্ধির কথা কেন্দ্র জানাতেও পারে। কিন্তু প্রশ্ন উঠছে, যাঁরা কম ভর্তুকি পেলেন, তাঁরাও কি সেই বাড়তি ভর্তুকি পাবেন?

Advertisement

এ মাসের গোড়ায় তেল সংস্থাগুলি জানিয়েছিল, কলকাতায় ১৯ কেজির সিলিন্ডারের দাম ৫৫.৫০ টাকা বাড়লেও ১৪.২ কেজির ভর্তুকিহীন সিলিন্ডারের দাম অপরিবর্তিত থাকবে (৬২০.৫০ টাকা)। কিন্তু দিন দুয়েক বাদে মাঝরাতে ডিস্ট্রিবিউটরদের কাছে পৌঁছয় তেল সংস্থাগুলির বার্তা। ৫০ টাকা বেড়ে কলকাতায় ১৪.২ কেজির সিলিন্ডারের দাম হয় ৬৭০.৫০ টাকা। ভর্তুকি বাড়েনি তখনও। গ্রাহক মহলে ক্ষোভের মধ্যে ১৪ ডিসেম্বর রাতে আচমকা দ্বিতীয় বার দাম বৃদ্ধির কথা ডিস্ট্রিবিউটরদের জানায় সংস্থাগুলি। তেল সংস্থা সূত্রের দাবি ছিল, বিশ্ব বাজারে রান্নার গ্যাসের দাম বৃদ্ধির জন্যই দেশেও তা বাড়ছে। কিন্তু ভর্তুকির অঙ্ক কেন স্থির সে প্রশ্নের জবাব মেলেনি তাদের কাছ থেকে। তবে সূত্রের দাবি, ভর্তুকি সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত নেয় কেন্দ্র।

সম্প্রতি তেল মন্ত্রক জানায়, গত বছরের জুলাইয়ের তুলনায় এ বছরের জুলাইয়ে ভর্তুকিযুক্ত সিলিন্ডারের দাম ৪৯৪.৩৫ টাকা থেকে বেড়ে ৫৯৪ টাকা হয়েছে (কর বাদে)। সেই হিসেবে এক জন গ্রাহকের ভর্তুকির টাকা এক বছরে প্রায় ১০০ টাকা কমে গিয়েছে।
সংশয়ের পারদ চড়ছে, এর পরে ভর্তুকি কি তুলেই দেবে মোদী সরকার?

Advertisement