এ যেন গোদের উপর বিষফোড়া।

পঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্কে আর্থিক প্রতারণা ও রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলিতে অনুৎপাদক সম্পদ বৃদ্ধির জেরে ইতিমধ্যেই শেয়ার বাজারে ধস নেমেছে। তার উপর যুক্ত হল ট্রাম্পের শুল্ক যুদ্ধ। যার জেরে সোমবার সপ্তাহের প্রথম লেনদেনেই আতঙ্কের জেরে ফের পড়ল বাজার। ট্রাম্পের সিদ্ধান্তের পরে এ দিনই প্রথম খুলল ভারতের বাজার। শুক্রবার হোলির জন্য বন্ধ ছিল বাজার।

এ দিন সেনসেক্সের পতন ৩০০.১৬ পয়েন্ট। নিফ্‌টি পড়েছে ৯৯.৫০ পয়েন্ট। বাজার বন্ধের সময়ে সেনসেক্স থামে ৩৩৭৪৬.৭৮ অঙ্কে, নিফ্‌টি ১০৩৫৮.৮৫ অঙ্কে। এর আগে টানা তিন দিনে সেনসেক্সের পতন প্রায় ৪০০ পয়েন্ট। পতনকে শুল্ক যুদ্ধ আরও দীর্ঘায়িত করবে বলে আশঙ্কা কিছু বাজার বিশেষজ্ঞের। তবে এটিই এই মুহূর্তে ভারতের শেয়ার বাজারে সব থেকে বড় সমস্যা বলে মানতে নারাজ তাঁদের অনেকেই।

আইসিআইসিআই প্রুডেন্সিয়াল অ্যাসেট ম্যানেজমেন্টের ফান্ড ম্যানেজার যোগেশ ভট্ট বলেন, ‘‘ভারতের বাজারের ঘাড়ে সব থেকে বেশি চেপে বসেছে পিএনবি কেলেঙ্কারি এবং রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের অনুৎপাদক সম্পদের বোঝা। এগুলির দ্রুত সমাধান করতে পারলে ট্রাম্পের মোকাবিলা করতে বাজারকে বিশেষ বেগ পেতে হবে না।’’ ভট্টের দাবি, আমেরিকা ইস্পাত এবং অ্যালুমিনিয়াম আমদানিতে শুল্ক বসানোয় ভারতের বিদেশি বাণিজ্য ক্ষতিগ্রস্ত হবে মাত্র ২%। চিনের ৩ %।

তবে বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, এশিয়ার মোট বিদেশি বাণিজ্যের প্রায় ৩০% নির্ভর করে আমেরিকার বাজারের উপর। কোরিয়া ও ইউরোপের বিদেশি বাণিজ্যও অনেকাংশে মার্কিন-নির্ভর। ওই সব দেশের আশঙ্কা, এর পরে অন্য কিছু পণ্যের ক্ষেত্রেও আমেরিকা একই ব্যবস্থা নিতে পারে। সব মিলিয়ে বিশ্বায়নের যুগে তার বিরূপ প্রভাব ভারতের বাজারেও পড়বে।

স্টুয়ার্ট সিকিউরিটিজের চেয়ারম্যান কমল পারেখ বলেন, ‘‘কিছু দিন অন্তত ট্রাম্পের ওই পদক্ষেপের প্রভাব ভারতে থাকবে। ফলে সূচকের আরও পতন হওয়ার সম্ভাবনা উড়িয়ে দেওয়া যায় না।’’

অবশ্য ভট্টের মতো বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, ‘‘১৯৯০ সালেও একই রকম শুল্ক যুদ্ধের কবলে পড়েছিল বিশ্ব। তখনও অনেকেই আশঙ্কা করেছিলেন, এর প্রভাব দীর্ঘস্থায়ী হবে। কিন্তু বাস্তবে তা হয়নি।’’ এ দিন ট্রাম্পের আমদানি শুল্ক বৃদ্ধির জেরে বিশেষ করে পড়েছে ইস্পাত এবং অ্যালুমিনিয়াম-সহ ধাতু সংস্থাগুরির দর। অবশ্য রেহাই পায়নি রিলায়্যান্স, ওএনজিসি, কোল ইন্ডিয়া, আইঅটিসি, এয়ারটেল, ইয়েস ব্যাঙ্ক-সহ আরও কিছু সংস্থার শেয়ার দর।

ট্রাম্পের তির

• ইস্পাতে ২৫% ও সেই সঙ্গে অ্যালুমিনিয়ামে ১০% আমদানি শুল্ক বসানো

• লক্ষ্য মার্কিন শিল্পোদ্যোগীদের বাঁচানো, কর্মসংস্থান তৈরি

• দীর্ঘ মেয়াদে এই শুল্ক বহাল রাখার সিদ্ধান্ত

• অন্য কিছু পণ্যেও তা চাপার আশঙ্কা

বাজারে জের

• ভারতে সেনসেক্স পড়ল ৩০০

• পতনের কবলে এশিয়া

বিশেষজ্ঞদের মত

• বাজারে পতন পর্ব দীর্ঘায়িত হতে পারে

• ধাক্কা খেতে পারে বিদেশি বাণিজ্য

• তবে ভারতে বাজারের সামনে মূল সমস্যা ভিন্ন

• পিএনবি-কাণ্ড ও ব্যাঙ্কের অনুৎপাদক সম্পদের বোঝাই বেশি বিপদ ডাকতে পারে বাজারে