বুধবার জাহাজ থেকে মালপত্র ওঠানো-নামানোর সঙ্গে যুক্ত শ্রমিকদের সংগঠন ধর্মঘটে গিয়েছিল। বৃহস্পতিবার তাতে যোগ দিল মেরিন ক্রুদের সংগঠনও। ফলে এ দিন হলদিয়া বন্দরে ঢুকতে পারল না পণ্যবাহী কোনও জাহাজ। আন্দোলনকারীদের সঙ্গে হলদিয়া বন্দর কর্তৃপক্ষের বৈঠক হলেও রফাসূত্র বার হয়নি। 

সূত্রের খবর, এ দিন সকাল থেকে তৃণমূল সমর্থিত তিনটি শ্রমিক সংগঠন কর্মবিরতি শুরু করে। সব মিলিয়ে বুধবার রাত থেকে বন্দরের বাইরে ছ’টি জাহাজ দাঁড়িয়ে। বন্দরের ভিতরে আরও ছ’টি। বন্দরের জেনারেল ম্যানেজার (ট্রাফিক) স্বপনকুমার সাহা রায় বলেন, ‘‘ডকের অয়েল জেটিতে যে সব জাহাজ দাঁড়িয়ে, সেখান থেকে মাল ওঠানামা চলছে। তবে নতুন জাহাজ বন্দরে ঢুকতে পারছে না।’’ 

শাসকদলের শ্রমিক সংগঠনগুলির বক্তব্য, সোমবার কলকাতা বন্দরের চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে প্রতিনিধি দল বন্দর পরিদর্শনে আসে। সে সময় ১৮ জন শ্রমিককে কাজে দেখতে না পেয়ে তাঁদের চার্জশিট দেন হলদিয়া বন্দর কর্তৃপক্ষ। এতেই আপত্তি সংগঠনের। কলকাতা পোর্ট ট্রাস্ট এমপ্লয়িজ ইউনিয়নের নেতা দেবাশিস চক্রবর্তী বলেন, ‘‘কর্তৃপক্ষের স্বেচ্ছাচারিতার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতেই অন্যায় ভাবে চার্জশিট দেওয়া হয়েছে।’’