একরত্তি ঐত্রী দে’র মৃত্যু হয়েছিল ১৭ জানুয়ারি। তখন মুকুন্দপুর আমরির তৎকালীন ইউনিট প্রধান জয়ন্তী চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে দুর্ব্যবহারের অভিযোগ উঠেছিল। ঘটনার ৫২ দিন পরে শুক্রবার, রাজ্য স্বাস্থ্য কমিশনের শুনানিতে পাল্টা অভিযোগে জয়ন্তী দাবি করেন, ঘটনার সময়ে তাঁর হাত মুচড়ে দেওয়া হয়েছিল।

সূত্রের খবর, এ দিন কোনও সিসিটিভির ফুটেজ দেখাতে পারেননি তাঁরা। তবে আমরি কর্তৃপক্ষের দাবি, ঘটনার সময়ের কিছু আওয়াজ তাতে ধরা পড়লেও সিসিটিভি-র মুখ অন্য দিকে থাকায় ছবি স্পষ্ট নয়। তাই, সংবাদমাধ্যমের ফুটেজকে ব্যবহার করতে চাইছে কমিশন। অসম্পাদিত ফুটেজের জন্য সংবাদমাধ্যমকে চিঠি লিখতে পারে তারা। আমরি কর্তৃপক্ষের এমন দাবি নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে, ঘটনার ৫২ দিন পর কেন এ কথা বলা হচ্ছে? মুকুন্দপুর আমরির এক আধিকারিক জানান, ‘‘আগেই কমিশনে দেওয়া ব্যক্তিগত হলফনামায় জয়ন্তী চট্টোপাধ্যায় এ কথা জানিয়েছিলেন।’’

এ দিনই আমরি কর্তৃপক্ষ এবং ঐত্রীর পরিবারের একে-অপরকে প্রশ্ন করার কথা ছিল। কিন্তু তা না হওয়ায় আগামী ২০ এপ্রিল দু’পক্ষই প্রশ্ন করার সুযোগ পাবেন। অবশ্য এ ক্ষেত্রে ‘মেডিক্যাল টার্মস’ নিয়ে কেউ কথা বলতে পারবেন না। কারণ তা মেডিক্যাল কাউন্সিলের অর্ন্তভুক্ত। এ নিয়ে শুক্রবার মেডিক্যাল কাউন্সিলে যান ঐত্রীর বাবা জয়ন্তবাবু। তাঁর বক্তব্য, ‘‘কাউন্সিল দ্রুত বিষয়টি নিয়ে পদক্ষেপ করবে বলে জানিয়েছে।’’ পাশাপাশি, ঐত্রী মামলায় স্মূর্তি প্রজ্ঞা প্রিয়দর্শিনী নামে যে নার্সকে নিয়ে বিতর্ক উঠেছিল তাঁর ফাইনাল ডিগ্রি এখনও আসেনি। আগামী মাসেই সে বিষয়টি স্পষ্ট হবে বলে মত আমরি-র।