এ যেন গোদের উপর বিষফোড়া!

এক দিকে সেতু দিয়ে ভারী যান চলাচল বন্ধ থাকায় রোজ যানজটে ফেঁসে থাকছে বিটি রো়ডের ডানলপ মোড়। যার ফলে উত্তর শহরতলির ব্যস্ত এই রাস্তায় গাড়ির লম্বা লাইন লেগেই থাকছে। এর সঙ্গেই শনিবার দুপুরে যোগ হল যুব উৎসবের মিছিল। সব মিলিয়ে প্রায় দেড় ঘণ্টা তীব্র যান-যন্ত্রণার শিকার হতে হল যাত্রীদের। তাঁদের মতে, শুধু ডানলপ নয়, ভোগান্তি হয়েছে বিটি রোড সংলগ্ন প্রায় সব রাস্তায়। গাড়ির লাইন সামলাতে কার্যত মাথায় হাত পরেছে পুলিশেরও।

স্বামী বিবেকানন্দের জন্মদিন উপলক্ষে এলাকায় যুব উৎসব পালন করতে এ দিন দুপুর ২টো নাগাদ কামারহাটির রথতলা মোড় থেকে শুরু হয় মিছিল। কয়েক হাজার মানুষ, স্কুল পড়ুয়া, ঘোড়ার গাড়ি, বাউল গান, ছো নাচ-সহ বিশাল শোভাযাত্রা বিটি রোড ধরে বেলঘরিয়া থানার সামনে থেকে শুরু হয়। এল-৯ মোড় হয়ে নীলগঞ্জ রোড ধরে মিছিল শেষ হয় দেশপ্রিয় নগরে। এর ফলে ব্যারাকপুরের দিক থেকে আসা গাড়ি যেমন আটকে পরে, তেমনই নীলগঞ্জ রোডেও ব্যাপক যানজট হয়। প্রায় তিন কিমি রাস্তায় দেড় ঘণ্টা ধরে কার্যত বন্ধ ছিল 

যান চলাচল।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রের খবর, দুপুর আড়াইটে নাগাদ ব্যারাকপুরের দিক থেকে আসার রাস্তা যখন কার্যত স্তব্ধ, তখন ডানলপ মোড়ের একটি সংগঠনের মিছিল বিটি রোড ধরে সিঁথির মোড়ে গিয়ে ঘোষপাড়ায় শেষ হয়। যার জেরে ডানলপ থেকে সিঁথির দিকে যাওয়ার রাস্তাও কার্যত অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে। পুলিশের দাবি, যান চলাচল স্বাভাবিক করতে আরও কয়েক ঘণ্টা সময় লেগে যায়। এক যাত্রীদের প্রশ্ন, ‘‘এত যানজট হলেও মিছিলের উদ্যোক্তাদের কি বিবেক সাড়া দেয় না?’’ কামারহাটির মিছিলের উদ্যোক্তা তথা চেয়ারম্যান পারিষদ বিমল সাহার দাবি, ‘‘অসুবিধা হলে দুঃখিত। তবে ভোগান্তির কথা ভেবেই বিটি রোডে বেশি ক্ষণ ঘুরিনি। নীলগঞ্জ রোডে চলে গিয়েছিলাম। আর মিছিলে স্থানীয় মানুষ নিজে থেকেই অংশ নিয়েছেন।’’