ট্র্যাফিক আইন ভাঙলে ইচ্ছে মতো জরিমানা আদায় করছে কলকাতা পুলিশ, এই অভিযোগ তুলে কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হল বাস ও মিনিবাস মালিকদের চারটি সংগঠন। বৃহস্পতিবার সেই মামলার শুনানিতে বিচারপতি দেবাংশু বসাক নির্দেশ দিয়েছেন, ওই অভিযোগ নিয়ে রাজ্যের কী বক্তব্য, তা হলফনামা দিয়ে জানাতে হবে।

অভিযোগকারী সংগঠনগুলির তরফে আইনজীবী দেবাশিস সাহা জানান, মামলার আবেদনে বলা হয়েছে, বিভিন্ন রাস্তায় ক্যামেরা বসিয়ে নির্দিষ্ট গতির চেয়ে বেশি গতিতে বাস, মিনিবাস চলছে কি না, তার উপর নজরদারি চালাচ্ছে ট্র্যাফিক পুলিশ। কিন্তু অভিযোগ, নির্দিষ্ট গতির চেয়ে বেশি গতিতে গাড়ি চলছে কি না, তা পরখ করার ক্ষমতা ওই সব ক্যামেরার নেই। তা সত্ত্বেও ওই ক্যামেরায় তোলা গতি দেখেই জরিমানা করা হচ্ছে গাড়িচালকদের। মোটর যান আইনে এই ভাবে জরিমানা আদায়ের ব্যবস্থা নেই। মামলার আবেদনে আরও বলা হয়েছে, সিগন্যাল অমান্য করা-সহ নানা অভিযোগে ট্র্যাফিক পুলিশ জরিমানা আদায় করছে তাদের ইচ্ছেমতো। অনেক ক্ষেত্রে বকেয়া জরিমানা আদায়ের জন্য বাস, মিনিবাস মালিকদের বাড়ি থেকে ডেকে আনা হচ্ছে। প্রতি মাসে মালিকদের কাছ থেকে গড়ে ১০-১৫ হাজার টাকা জরিমানা বাবদ আদায় করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ করা হয়েছে মামলার আবেদনে।

বিচারপতি এ দিন রাজ্যের কৌঁসুলি অমল সেনকে নির্দেশ দিয়েছেন, এ নিয়ে দু’সপ্তাহের মধ্যে হলফনামা পেশ করতে হবে। মালিক সংগঠনগুলিকে বিচারপতির নির্দেশ, রাজ্যের বক্তব্য নিয়ে তাঁদের যদি কোনও পাল্টা বক্তব্য থাকে, তাহলে তা এক সপ্তাহের মধ্যে হলফনামা দিয়ে জানাতে হবে। মামলার পরবর্তী শুনানি চার সপ্তাহ পরে।

 দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯