কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বারভাঙা ভবনের এক দিকে ধস নামল। তবে তাতে তেমন কোনও ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। কিন্তু বিষয়টি নিয়ে ক্ষোভ ছড়িয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্দরে।

গত এক বছর ধরে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের কলেজ স্ট্রিট ক্যাম্পাসে দ্বারভাঙা ভবন সংস্কারের কাজ চলছে। সূত্রের খবর, মঙ্গলবার রাতের দিকে ধস নামে। এ দিন বিশ্ববিদ্যালয়ের ইঞ্জিনিয়ার শুভাশিস সান্যাল জানান, দ্বারভাঙা ভবনের পুরনো লিফট অকেজো হয়ে গিয়েছে। তার পাশেই একটি নতুন লিফট বসানোর কাজ চলছে। শুভাশিস বলেন, ‘‘পূর্ত বিভাগের মাধ্যমে পুরনো লিফটের পাশে কাজ চলছিল। সেখান থেকে এ দিন কিছু ঝুরো মাটি খসে পড়ে। তবে ক্ষয়ক্ষতি কিছু হয়নি।’’

কিন্তু দ্বারভাঙা ভবনে যে ভাবে সংস্কারের কাজ করা হচ্ছে, তা নিয়ে ইতিমধ্যেই ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মীদের একাংশ। এ নিয়ে কর্তৃপক্ষের কাছে প্রতিবাদপত্রও জমা দিয়েছেন কর্মচারীদের একাংশ। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় এমপ্লয়িজ ইউনিয়নের নেতা শুভেন্দু মুখোপাধ্যায় জানাচ্ছেন, তাঁরা কর্তৃপক্ষের কাছে আগেই দাবি জানিয়েছিলেন, হেরিটেজ কমিশনের অনুমতি নিয়ে যদি দ্বারভাঙা ভবনের সংস্কারের কাজ হয়, সে ক্ষেত্রে এ নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে বিস্তারিত ভাবে জানাতে হবে। কিন্তু তা করা হয়নি। 

এর মধ্যেই এই ধস। শুভেন্দু এ দিন বলেন, ‘‘বৃহস্পতিবার লিখিত ভাবে গোটা বিষয়টির তদন্ত চাইব। বিশ্ববিদ্যালয়ের ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ থাকলেও কেন সংস্কারের কাজে পূর্ত বিভাগকে ডাকা হয়েছে, তা-ও জানতে চাইব।’’ 

এ দিন ধস নামার খবর চাউর হতে ক্যাম্পাসে উপস্থিত হন বিজেপি প্রভাবিত কর্মচারী পরিষদের সদস্যেরা। রাজ্য কর্মচারী পরিষদের সভাপতি মন্মথ বিশ্বাস কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়েরই কর্মী। তিনি বলেন, ‘‘এই সংস্কারের কাজ কী ভাবে চলছে, কর্তৃপক্ষকে তা বিস্তারিত জানাতে হবে। সংস্কারের কাজে পূর্ত দফতর কেন, তা-ও জানাতে হবে।’’