যৌন হেনস্থার ঘটনায় অভিযুক্তের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নেওয়া, হিন্দু হস্টেলের অব্যবস্থা, বাংলা মাধ্যমের পড়ুয়াদের ইংরেজি মাধ্যমে পড়ার অসুবিধা, ক্যান্টিনের অপ্রতুল পরিকাঠামো, স্যানিটারি ন্যাপকিনের পর্যাপ্ত সংখ্যক ভেন্ডিং মেশিন না থাকা, বিশ্ববিদ্যালয়ের ফি বৃদ্ধি-সহ বিভিন্ন প্রসঙ্গ উঠে এল প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিরোজিও হলের বিতর্কসভায়।

১৪ নভেম্বর প্রেসিডেন্সিতে ছাত্র সংসদের নির্বাচন। তার আগে শুক্রবার ওই বিতর্কসভার আয়োজন করা হয়। সেখানে ছাত্র সংসদ নির্বাচনে যাঁরা দাঁড়িয়েছেন, তাঁরা বক্তৃতা দেন ও পড়ুয়ারা তাঁদের প্রশ্ন করেন। সেই প্রশ্নোত্তর পর্বেই যৌন হেনস্থায় অভিযুক্তেরা ক্যাম্পাসে ঘুরে বেড়াচ্ছে বলে অভিযোগ উঠল। যার জেরে শুরু হয় বাদানুবাদ। পরে পরিস্থিতি শান্ত হলে ফের শুরু হয় বিতর্কসভা।

পড়ুয়ারা প্রশ্ন করেন, যাঁরা বাংলা মাধ্যম থেকে এসেছেন, তাঁদের অনেকেই ইংরেজিতে স্বচ্ছন্দ নন। ফলে পড়াশোনায় অসুবিধা হচ্ছে। কেন বাংলায় পড়ানো ও উত্তর লেখার ব্যবস্থা থাকবে না? অভিযোগ ওঠে বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রন্থাগার ও জিমের পরিকাঠামো নিয়েও। হিন্দু হস্টেল খুললেও ঘরের অভাব রয়েছে বলে অভিযোগ করেন পড়ুয়ারা।