এক বৃদ্ধার রহস্যমৃত্যুকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়াল পাটুলি থানার দক্ষিণ রায়পুরে। পুলিশ জানিয়েছে, মৃতের নাম শোভা চট্টোপাধ্যায় (৬৮)। অভিযোগ, প্রায়ই বৃদ্ধাকে মারধর করতেন তাঁর ছেলে দেবল চট্টোপাধ্যায়। যদিও প্রাথমিক তদন্তের পর পুলিশ জানিয়েছে, মৃতের দেহে কোনও আঘাতের চিহ্ন মেলেনি। দক্ষিণ রায়পুরেরই একটি বহুতলে ছেলের সঙ্গে থাকতেন ওই বৃদ্ধা।      

পুলিশ সূত্রের খবর, এ দিন দুপুর আড়াইটে নাগাদ পাটুলি থানায় বৃদ্ধার এক আত্মীয় ফোন করেন। তিনি পুলিশকে শোভাদেবীর মৃত্যুর খবরটা জানান। সেই খবর পেয়েই পুলিশ বহুতল থেকে বৃদ্ধাকে উদ্ধার করে এম আর বাঙ্গুর হাসপাতালে পাঠায়। কিন্তু চিকিত্সকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। বৃদ্ধার আত্মীয়ের অভিযোগ, শোভাদেবীর ছেলে তাঁকে প্রায়ই মারধর করতেন। একই অভিযোগ জানিয়েছেন প্রতিবেশীরাও। যদিও পুলিশের কাছে বৃদ্ধার ছেলে দাবি করেছেন, তাঁর মা বহুদিন ধরেই অসুস্থ।

কী ভাবে শোভাদেবীর মৃত্যু হয়েছে তা জানার জন্য ছেলেকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।

আরও পড়ুন: এক সন্ধ্যায় দেখা হল দু’জনায়, মাঝরাতে বিয়ে, অষ্টমীর প্যান্ডেলই ছাদনাতলা

এই বহুতলেই থাকতেন বৃদ্ধা।—নিজস্ব চিত্র।

পুলিশ জানিয়েছে, বৃদ্ধার ঘর থেকে চিকিৎসকের প্রেসক্রিপশন পাওয়া গিয়েছে। বৃদ্ধার দেহ ময়না তদন্তে পাঠানো হয়েছে। রিপোর্ট আসার পরেই বিষয়টি পরিষ্কার হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ। 

আরও পড়ুন: অযোধ্যার বিতর্কিত জমি হিন্দুদের দিতে আপত্তি নেই মুসলিম সমাজের বিশিষ্টজনদের