বিতর্কিত রাম জন্মভূমি দিয়ে দেওয়া হোক হিন্দুদের। সুপ্রিম কোর্টে অযোধ্যা মামলার শুনানি যখন শেষ পর্যায়ে, তখন এমনই দাবি উঠল মুসলিম সম্প্রদায়ের বিশিষ্ট মহলে। দেশে সম্প্রীতির আবহ বজায় রাখতেই এমন প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে বলে খবর। 

আগামী ১৮ অক্টোবরের মধ্যে রাম জন্মভূমি-বাবরি মসজিদ জমি মামলার শুনানি শেষ করতে হবে বলে ইতিমধ্যেই জানিয়ে দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। তার পরে সওয়াল করার জন্য সময় পাবেন না কোনও পক্ষই। এমন পরিস্থিতিতে বৃহস্পতিবার লখনউতে বিশেষ আলোচনাসভার আয়োজন করেছিল ‘ইন্ডিয়ান মুসলিমস ফর পিস’ সংগঠন। আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য তথা অবসরপ্রাপ্ত লেফটেন্যান্ট জেনারেল জমিরউদ্দিন শাহ-সহ বিশিষ্ট আইনজীবী, অবসরপ্রাপ্ত আমলা, সাংবাদিক, চিকিৎসক এবং ব্যবসায়ীরা ওই আলোচনাসভায় যোগ দিয়েছিলেন। সেখানেই এমন প্রস্তাব ওঠে।

একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে লেফটেন্যান্ট জেনারেল জমিরউদ্দিন শাহ বলেন, ‘‘আমি বাস্তববাদী। আমাদের সকলেরই বাস্তবটা বোঝা উচিত। আদালতের রায় মুসলিমদের পক্ষে গেলেও, অযোধ্যায় মসজিদ গড়া কি আদৌ সম্ভব হবে? আমার তা অসম্ভব বলেই মনে হয়। এই মুহূর্তে দেশের যা পরিস্থিতি, ওই স্বপ্ন পূরণ হওয়া সম্ভব নয়। তাই কোনও ভাবে আদালতের রায় পক্ষে গেলে, সংখ্যাগরিষ্ঠ সম্প্রদায়ের হাতে ওই জমি তুলে দেওয়াই ঠিক হবে। তার পরিবর্তে উপাসনাস্থল সংক্রান্ত আরও দৃঢ় আইনের নিশ্চয়তা আদায় করে নিতে হবে।’’ আদালতের বাইরে রাম জন্মভূমি এবং বাবরি বিতর্কের সমাধান করতে পারলে তা সব পক্ষের জন্য হিতকর হবে বলেও দাবি করেন তিনি। 

আরও পড়ুন: ভাড়া লক্ষাধিক, যাত্রী মাত্র ৪ জন! বিলাসবহুল করবা চৌথ স্পেশাল ট্রেন বাতিল করল রেল​

আরও পড়ুন: এক সন্ধ্যায় দেখা হল দু’জনায়, মাঝরাতে বিয়ে, অষ্টমীর প্যান্ডেলই ছাদনাতলা​

এর আগে, গত অগস্ট মাসে অযোধ্যা মামলার শুনানি চলাকালীনই মুসলিদের পক্ষ থেকে মকদ্দমাকারী একদল বিতর্কিত ওই জমি ছেড়ে দেওয়ার পক্ষে সরব হয়েছিল। কিন্তু যথেষ্ট সমর্থন জোগাড় করতে না পারায় সে বার বিষয়টি থিতিয়ে যায়। এমনকি সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত তিন সদস্যের মধ্যস্থতা কমিটির সামনে অযোধ্যা মামলার অন্যতম পক্ষ সুন্নি সেন্ট্রাল ওয়াকফ বোর্ডের মুখেও একই কথা শোনা যায় বলে সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর। তবে এ নিয়ে নিশ্চিত ভাবে কিছু জানা যায়নি।