• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ভাড়া লক্ষাধিক, যাত্রী মাত্র ৪ জন! বিলাসবহুল করবা চৌথ স্পেশাল ট্রেন বাতিল করল রেল

Train
করবা চৌথ স্পেশাল ট্রেনের অন্দরমহল। —ফাইল চিত্র

Advertisement

পরিকল্পনা ছিল, করবা চৌথকে স্মরণীয় করে রাখতে বিলাসবহুল ট্রেন সফর। স্বামী-স্ত্রীর রোমান্সকে এমন ভাবে পুনরুজ্জীবিত করা, যেটা সারা জীবন মনে থাকে। কিন্তু ভেস্তে গেল রেলের সেই উদ্যোগ। মাত্র দু’টি বুকিং পেয়ে বাতিলই করতে হল করবা চৌথ স্পেশাল ট্রেন। রেলের একটি সূত্রে খবর, এই সামান্য বুকিংয়ের জন্যই ট্রেন বাতিল করা হয়েছে। অনেকেই বলছেন, অফার লোভনীয় হলেও বিপুল অঙ্কের ভাড়ার জন্যই যাত্রী টানতে পারল না রেল।

ম্যাজেস্টিক রাজস্থান ডিলাক্স এক্সপ্রেসে আইআরসিটিসি অফার দিয়েছিল পাঁচ দিনের প্যাকেজ ট্যুর-এর। এক দিকে ট্রেনের মধ্যে রাজকীয় আয়েশের বন্দোবস্ত, সঙ্গে রাজস্থানের বিভিন্ন ঐতিহাসিক নিদর্শন ঘুরে দেখার সুযোগ ছিল ট্রেন সফরে। শুধুমাত্র দম্পতিদের জন্যই বুকিংয়ের ব্যবস্থা ছিল। তবে সঙ্গে শিশু সন্তানদের নিয়ে ঘোরার বন্দোবস্ত করেছিল আইআরসিটিসি। এ বছর করবা চৌথ পড়েছে ১৭ অক্টোবর। সেই উপলক্ষে ১৪ অক্টোবর দিল্লির সফদর জং স্টেশন থেকে ছাড়ার কথা ছিল। অক্টোবরের ১৮ তারিখ পর্যন্ত পাঁচ দিন রাজস্থানের জয়সলমের দুর্গ, পাটন কি হাভেলি, মেহরানগড় দুর্গ, অম্বর দুর্গ, সিটি প্যালেসের মতো বিভিন্ন ঐতিহাসিক নিদর্শন ঘুরিয়ে দেখানো হত।

মূলত অবাঙালিদের অনুষ্ঠান করবা চৌথ। সারাদিন উপোস থেকে সন্ধ্যায় চাঁদ দেখার পর খাবার খান স্ত্রীরা। ট্রেনের মধ্যে তারও বন্দোবস্ত করেছিল আইআরসিটিসি। কিন্তু তাতে বুকিং করেছেন মাত্র দু’জোড়া দম্পতি। মোট আসন ছিল ৭৮টি। রেলের আধিকারিকদের বক্তব্য, ‘‘মাত্র দুই জোড়া দম্পতি টিকিট বুকিং করেছেন। তাই স্বাভাবিক ভাবেই ট্রেন বাতিল করা হয়েছে। খালি ট্রেন তো আর আমরা চালাতে পারি না।’’

করবা চৌথ বেড়ানো পাশাপাশি এই ট্রেনের মধ্যেও ছিল খাওয়া-দাওয়া, বিনোদনের ভরপুর আয়োজন। শাওয়ার কেবিন, ফুট ম্যাসাজ, ডিজিটাল লকার, বসার জন্য লন, সিঙ্গল সিটার সোফার মতো বন্দোবস্ত। মেনুতেও ছিল রাজকীয় ছাপ। শিশুদের জন্য আলাদা খেলা বা হাঁটা চলার মতো জায়গার ব্যবস্থাও করা হয়েছিল।

করবা চৌথ এক্সপ্রেস। —ফাইল ছবি

আরও পড়ুন: ব্যাঙ্কিং ক্ষেত্রেও অশনি সঙ্কেত! লাফিয়ে বাড়ছে অনুৎপাদক সম্পদের পরিমাণ

আরও পডু়ন: পুজো শেষে অপেক্ষা কার্নিভালের, এ বারের থিম ‘রাঙা মাটির বাংলা’

আর ভাড়া? সেটা শুনলে চোখ কপালে উঠতে পারে অনেকেরই। এসি প্রথম শ্রেণিতে দম্পতি পিছু ভাড়া ছিল এক লক্ষ দু’হাজার ৯৬০ টাকা। আর দ্বিতীয় শ্রেণির এসি কামরার ভাড়া নির্ধারিত হয়েছিল ৯০ হাজার ৯০ টাকা। অনেকেই মনে করছেন, এই বিপুল ভাড়া ধার্য করাই কাল হল। এত টাকা ভাড়া দিয়ে ট্রেন সফরে যেতে রাজি হননি অনেকেই।

কিন্তু যাঁরা বুকিং করেছিলেন তাঁদের কী হবে? রেলের একটি সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই দুই দম্পতির টাকা ফিরিয়ে দেবে রেল।

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন