নীল-সাদা রঙের ছাপা কুর্তি আর পালাজো। বাঁ হাতে ঘড়ি। খালি পায়ে বেসরকারি হাসপাতালের সামনে ঘোরাঘুরি করছেন এক বৃদ্ধা। কিছু ক্ষণ তাঁকে এ ভাবে ঘোরাঘুরি করতে দেখে দুর্গাপুর কলোনির বাসিন্দা বিশ্বজিৎ ঘোষ তাঁর সঙ্গে কথা বলেন। বুঝতে পারেন, বৃদ্ধা বাড়ি খুঁজে পাচ্ছেন না। ফোন নম্বরও মনে করতে পারছেন না। শেষে থানায় ফোন করে পুলিশকে ডেকে এনে ওই বৃদ্ধাকে বাড়ি পাঠানোর ব্যবস্থা করলেন বিশ্বজিৎবাবু। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় নিউ আলিপুর থানার ঘটনা।  

পুলিশ সূত্রের খবর, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বিশ্বজিৎবাবু থানায় ফোন করে বিষয়টি জানান। এর পরেই পুলিশ ওই বৃদ্ধাকে নিয়ে তাঁর বাড়ির খোঁজ শুরু করে। রাতেই তাঁকে বাড়ি ফেরত পাঠানো হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, ওই মহিলার নাম ঊর্মিলা কাজোরিয়া (৭০)। বাড়ি আলিপুর অ্যাভিনিউয়ে। রাস্তায় বেরিয়ে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। 

শুক্রবার বিশ্বজিৎবাবু বলেন, ‘‘উনি প্রথমে ভুলভাল ফোন নম্বর বলছিলেন। পরে একটি নম্বর ঠিকমতো বলেন। কিন্তু সেটিও অন্য একজনের কাছে চলে যায়। তখন ভাবলাম পুলিশকে ফোন করি।’’ পুলিশ দেখে, আশপাশের কোনও থানায় ওই মহিলার নামে নিখোঁজ ডায়েরি হয়নি। এর পরেই নিউ আলিপুর থানার পুলিশ বিভিন্ন জায়গায় ছবি পাঠিয়ে খোঁজখবর শুরু করে। জানা যায়, বৃদ্ধার বাড়ি আলিপুর থানা এলাকায়। ওই রাতেই তাঁকে আলিপুর অ্যাভিনিউয়ের বাড়িতে পৌঁছে দেওয়া হয়। তাঁর স্বামী কমল কাজোরিয়া পুলিশকে জানিয়েছেন, ঊর্মিলাদেবীর ডিমেনশিয়া আছে। বাড়িতে তাঁরা দু’জনেই থাকেন। ছেলেমেয়েরা বাইরে থাকেন। মাঝেমাঝে হাঁটতে বেরোন ঊর্মিলাদেবী। বৃহস্পতিবার হাঁটতে বেরিয়ে হারিয়ে যান তিনি।

 দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯