মত্ত অবস্থায় দুই সরকারি দফতরের দুই অস্থায়ী কর্মী বচসা করছিলেন। অভিযোগ, এক জন অন্য জনকে ছুরি মারার চেষ্টা করেন। চন্দন মণ্ডল নামে ওই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাতে ওই ঘটনা ঘটে বারুইপুরে মহকুমা শাসকের অফিস চত্বরে।

পুলিশ জানায়, বিদ্যুৎ বন্টনের অফিস চত্বরে মদ্যপান করছিলেন চন্দন মণ্ডল নামে মহকুমা শাসকের দফতরের অস্থায়ী কর্মী। ওই সময়ে বিদ্যুৎ বন্টন দফতরের অস্থায়ী কর্মী জুলফিকার সেখানে যান। অভিযোগ, দু’জনের মধ্যে বচসা হয়। বচসার সময়ে চন্দন জুলফিকারের পেটে ছুরি মারা চেষ্টা করেন। জুলফিকার চন্দনকে বাধা দিলে ছুরি তাঁর কোমরে লাগে। ঘটনার পরে চন্দন পালান। জুলফিকারকে বারুইপুর মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

দু’টি দফতরই বারুইপুর মহকুমা প্রশাসনিক ভবন চত্বরে। বারুইপুরের মহকুমা শাসক দেবারতি সরকার বলেন, ‘‘সরকারি ভাবে আমাকে কিছুই জানানো হয়নি। পুলিশ কোনও রিপোর্ট দিলে আইনি পদক্ষেপ করব।’’ বারুইপুর জেলা পুলিশ সুপার রশিদ মুনির খান বলেন, ‘‘চন্দনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।’’