ভরদুপুরে বাড়িতে ঢুকে সোনার গয়না চুরি করে ধরা পড়ল এক শিশু-সহ দুই অন্তঃসত্ত্বা। বাঘাযতীন স্টেশন থেকে তাদের গ্রেফতার করে পুলিশ। ধৃত দুই মহিলার নাম ইন্দ্রবতী দাস এবং রূপা দাস।

বুধবার পাটুলির ঘোষপাড়ার মদন মোহন মন্দিরের কাছে একটি বাড়ি থেকে গয়না চুরি যাওয়ার খবর পায় পুলিশ। ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ জানতে পারে, পুজা কুণ্ডু নামে ওই মহিলার বাড়ি থেকে তিনটে সোনার আংটি, একটা কানের দুল এবং কিছু নগদ টাকা চুরি হয়েছে।

পুলিশকে তিনি জানান, ওই দিন তাঁর বাড়িতে দুই মহিলা এক শিশুকন্যাকে নিয়ে আসে। দুই মহিলাই অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন।

উদ্ধার হওয়া সোনার গয়না। —নিজস্ব চিত্র।

আরও পড়ুন: কোন্নগরে শিক্ষক নিগ্রহে ‘দুঃখিত’ মমতা, হাতজোড় করে ক্ষমা চাইলেন তৃণমূল বিধায়ক

পুলিশ স্থানীয়দের জিজ্ঞাসা করে জানতে পারে, ওই তিন জনকে তাঁরা হেঁটে যেতে দেখেছেন। তাদের পোশাক দেখে যাযাবর বলে মনে হয়েছে। এর পরই পুলিশ আর দেরি করেনি। হেঁটে বেশি দূর যেতে পারবে না তারা, তাই তখনই আশেপাশের এলাকায় তল্লাশি শুরু করে দেয় পুলিশ।

আরও পড়ুন: সমুদ্রের নীচে নৌকা ভর্তি রাশি রাশি সোনা, জানেন এই শহরের ইতিহাস?

সে দিনই বাঘাযতীন রেলওয়ে স্টেশনে এক শিশুর সঙ্গে দুই অন্তঃসত্ত্বাকে দেখে সন্দেহ হয় পুলিশের। থানায় এনে জেরা করতেই চুরির কথা স্বীকার করে তারা। তাদের কাছ থেকে চুরি যাওয়া জিনিসপত্র উদ্ধার করেছে পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, শিয়ালদহ স্টেশনের ১০ নম্বর প্ল্যাটফর্মে তারা থাকে। এক শ্রেণির যাযাবর দল রয়েছে যারা কলকাতা শহরে ছড়িয়ে পড়ে চুরি করে থাকে। এরা সেই দলের সঙ্গেই যুক্ত বলে পুলিশের অনুমান।