• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

কারখানায় চুরি করতে ঢুকে মৃত্যু রক্ষীর গুলিতে

Dead
প্রতীকী ছবি

নিরাপত্তারক্ষীর ছোড়া গুলিতে মৃত্যু হল এক দুষ্কৃতীর। পুলিশ জানিয়েছে, মৃতের নাম বিশ্বজিৎ বসু (৩৫)। তার বাড়ি বেহালার ভূপেন রায় রোডে। রবিবার গভীর রাতে ঘটনাটি ঘটেছে তারাতলা রোডের একটি কারখানায়। 

পুলিশ সূত্রের খবর, রবিবার রাত ৩টে নাগাদ তারাতলা রোডের একটি কারখানায় লোহা চুরি করতে ঢোকে বিশ্বজিৎ ও তার শাগরেদ পাতলা। দুই দুষ্কৃতীকে দেখে তাড়া করেন কারখানার নিরাপত্তারক্ষী রমেশচন্দ্র গুপ্ত। রমেশবাবুর দাবি, পাতলা পালিয়ে গেলেও বিশ্বজিৎ চুরির সামগ্রী ছেড়ে যেতে চায়নি। রমেশবাবু বিশ্বজিৎকে ওই জিনিস রেখে দিতে বললেও সে শোনেনি বলে অভিযোগ। এর মধ্যে চলে আসেন ওই কারখানার আর এক নিরাপত্তারক্ষী।

বিশ্বজিৎ চুরির মালপত্র নিয়ে পালানোর সময়ে রমেশবাবু গুলি চালান। মাটিতে লুটিয়ে পড়ে বিশ্বজিৎ। দুই নিরাপত্তারক্ষী মিলে তাকে এসএসকেএম হাসপাতালে নিয়ে যান। সোমবার বিকেলে সেখানেই মারা যায় বিশ্বজিৎ।

এই ঘটনায় তারাতলা থানার পুলিশ দু’টি মামলা রুজু করেছে। প্রথমত, গুলিতে মৃত্যুর ঘটনায় পুলিশ ওই নিরাপত্তারক্ষীর বিরুদ্ধে মামলা রুজু করেছে। দ্বিতীয়ত, চুরির চেষ্টার অভিযোগেও একটি মামলা হয়েছে। লালবাজারের এক কর্তা বলেন, ‘‘প্রাথমিক ভাবে নিরাপত্তারক্ষীর বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগে মামলা রুজু করা হলেও তদন্ত করে দেখা হবে, তিনি নিজেকে বাঁচাতে গুলি চালিয়েছিলেন কি না। সে ক্ষেত্রে তিনি নির্দোষ বলে গণ্য হবেন। তবে পুরোটাই তদন্তসাপেক্ষ।’’ ওই আধিকারিক আরও জানান, দ্বিতীয় ক্ষেত্রে চুরি করতে আসা পলাতকের খোঁজে তল্লাশি চলছে।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন