যখন যেমন, তখন তেমন।

পরিবেশবান্ধব শক্তি উৎপাদনের একটিই যন্ত্র। তা থেকে সৌর বিদ্যুতের পাশাপাশি হাও়়য়া ও আবর্জনা থেকেও বিদ্যুৎ উৎপন্ন করা যাবে। শিবপুরের ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব ইঞ্জিনিয়ারিং, সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি-র (আইআইইএসটি) তৈরি করা এমনই যন্ত্রের প্রশংসা করলেন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়।

শুক্রবার আইআইইএসটি-র ক্যাম্পাসে একটি অনুষ্ঠানে এসে প্রণববাবু যন্ত্রগুলির উদ্বোধন করেন। বলেন, ‘‘সারা বিশ্বে চিরাচরিত শক্তির বদলে অচিরাচরিত বিকল্প শক্তির অনুসন্ধান চলছে। আইআইইএসটি বিকল্প শক্তি উৎপাদনের জন্য যে যন্ত্র আবিষ্কার করেছে তার চাহিদা মারাত্মক। আগামী দিনে গোটা দেশে এই যন্ত্রের দরকার হবে।’’

২০১৫-র ডিসেম্বরে প্যারিসে আন্তর্জাতিক জলবায়ু সম্মেলনে যে চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে তার কথা মাথায় রেখেই ভারতকে তাপ বিদ্যুতের বদলে অপ্রচলিত ও পরিবেশবান্ধব শক্তির উপরে জোর দিয়েছে কেন্দ্র।

রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘‘গোটা বিশ্ব যে জায়গায় গিয়ে পৌঁছচ্ছে, সেখানে অচিরাচরিত শক্তির ব্যবহারই অনিবার্য হয়ে উঠবে। পানীয় জলের সমস্যা তৈরি হবে। সে ক্ষেত্রে মাটির তলায় জল সংরক্ষণ কী ভাবে করা যায় সে ব্যাপারে সচেতনতা তৈরিও জরুরি।’’ এ জন্য কেন্দ্র যে পারমাণবিক শক্তির প্রকল্প তৈরি করতে উদ্যোগী হয়েছে ও এ বিষয়ে রাষ্ট্রপতি ভবনেও প্রায়ই যে গবেষণামূলক কর্মশালা ও সেমিনার আয়োজন করা হচ্ছে তার উল্লেখও করেন প্রণববাবু।

অনুষ্ঠানে ছিলেন বিদ্যুৎমন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়, আইআইইএসটি-র চেয়ারম্যান কোপিল্লিল রাধাকৃষ্ণন, অধিকর্তা অজয়কুমার রায়, রেজিস্ট্রার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় প্রমুখ। শোভনবাবু জানান, রাজ্যও অচিরাচরিত শক্তিকে কাজে লাগানোর চেষ্টা করছে।