রাস্তার একটি অংশে চলছে মেরামতির কাজ। তার ঠিক আগেই রাস্তা জুড়ে দাঁড়িয়ে একটি ট্যাক্সি। তার জেরে যান চলাচল ব্যাহত হতে দেখে ট্র্যাফিক পুলিশের এক অফিসার সেখানে যান। তিনি চালককে ট্যাক্সি সরাতে বলেন এবং গাড়ির নথি দেখাতে বলেন। ওই সময়ে সেখানে হাজির হন গাড়ির মালিক এবং তাঁর সঙ্গী। অভিযোগ, অফিসার ট্র্যাফিক আইন অমান্য করার জন্য ব্যবস্থা নিতেই গাড়ির মালিক, চালক ও তাঁর সঙ্গী অফিসারের সঙ্গে বচসা শুরু করেন। তার পরে ওই সার্জেন্টকে ধাক্কাধাক্কিও করা হয় বলে অভিযোগ। খবর পেয়ে অতিরিক্ত পুলিশকর্মীরা সেখানে এসে প্রহৃত অফিসারকে উদ্ধার করেন এবং অভিযুক্তদের আটক করেন।

লালবাজার জানিয়েছে, সোমবার রাতে পুলিশ নিগ্রহের ওই ঘটনা ঘটেছে পর্ণশ্রী থানা এলাকার বীরেন রায় রোড (পশ্চিম) এ। জখম পুলিশ অফিসারের নাম অনিন্দ্যসুন্দর নস্কর। তিনি ডায়মন্ড হারবার ট্র্যাফিক গার্ডের সার্জেন্ট। রাতেই তাঁকে বিদ্যাসাগর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে প্রাথমিক চিকিৎসার পরে ছেড়ে দেওয়া হয়। তদন্তকারীরা জানিয়েছেন, সরকারি কর্মীর কাজে বাধা এবং তাঁকে মারধর করার অভিযোগে ট্যাক্সিচালক এবং মালিক-সহ তিন জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ট্যাক্সিটিও আটক করা হয়েছে। ধৃত জ্যোতিষ সিংহ, তাপস সংগ্রাম এবং সুপ্রিয় সিংহকে মঙ্গলবার আদালতে তোলা হয়। তাপস ট্যাক্সিটির মালিক। জ্যোতিষ গাড়িটির চালক।

পুলিশ সূত্রের খবর, সোমবার রাতে বীরেন রায় রোডে (পশ্চিম) বেহালা ইন্ডাস্ট্রিয়াল এস্টেটের কাছে রাস্তার একটি অংশ ধসে যাওয়ায় সরশুনার দিকে যাওয়া গাড়ির গতি বাধা পাচ্ছিল। যান চলাচল স্বাভাবিক করতে সেখানে যান ওই সার্জেন্ট। পুলিশ জানায়, রাস্তার মাঝখানে ট্যাক্সিটি দাঁড়িয়েছিল। অনিন্দ্যবাবু ওই ট্যাক্সিচালককে সেখান থেকে সরে যেতে বললেও তিনি সরেননি। গাড়িটা কিছুটা এগিয়ে ফের তিনি রাস্তার মাঝেই দাঁড়িয়ে পড়েন। ওই সময়ে গাড়ির লাইন বেহালা চৌরাস্তা পর্যন্ত পৌঁছে গিয়েছিল। ট্র্যাফিক আইন অমান্য করায় অনিন্দ্যবাবু খালি ট্যাক্সির চালকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে গাড়ির নথিপত্র চেয়ে পাঠান। অভিযোগ, চালক বৈধ নথি দেখাতে পারেননি। রাস্তায় বেআইনি ভাবে দাঁড়িয়ে যানজট তৈরির অভিযোগে ওই সার্জেন্ট ওই ট্যাক্সিচালককে জরিমানার কথা বলেন। এর মধ্যেই সেখানে চলে আসেন গাড়ির মালিক তাপস এবং তার সঙ্গী সুপ্রিয়।

অভিযোগ, জরিমানা করা নিয়ে ওই তিন জন বচসা শুরু করেন পুলিশ অফিসারের সঙ্গে। অভিযোগ, তাপস ওই অফিসারকে কটূক্তি করেন। তদন্তকারীরা জানান, ওই কথার পরেই প্রতিবাদ করেন অফিসার। সেই সময়ে অভিযুক্ত তিন জন ধাক্কা মারেন ওই অফিসারকে। সেই সঙ্গে অনিন্দ্যবাবুকেও গালিগালাজ করা হয়। ধাক্কাধাক্কির জেরে হাতে আঘাত পান ওই অফিসার। পুলিশ জানিয়েছে, ওই ঘটনাস্থলের কিছুটা দূরে চলছিল নাকা চেকিং। সহকর্মীকে নিগ্রহ করা হচ্ছে খবর পেয়ে সেখানে আসেন অন্য পুলিশকর্মীরা। তাঁরাই অনিন্দ্যবাবুকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠান এবং অভিযুক্ত তিন জনকে আটক করে পর্ণশ্রী থানার হাতে তুলে দেন।