নীলরতন সরকার মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসকদের মারধর ও ভাঙচুরের ঘটনায় অন্তর্বর্তী জামিন পেলেন আরও দুই অভিযুক্ত। সোমবার শিয়ালদহ আদালতের অতিরিক্ত মুখ্য বিচারবিভাগীয় ম্যাজিস্ট্রেট শুভদীপ রায় ওই দুই অভিযুক্তকে ১৯ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত অন্তর্বর্তী জামিন দিয়েছেন। গত ১০ জুন রাতে এন আর এস-এ এক রোগীর মৃত্যুর জেরে দুই চিকিৎসককে মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। তার পরে সেখানে ভাঙচুরও করা হয়। ওই ঘটনায় সাত জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এর আগে পাঁচ অভিযুক্ত জামিন পেয়েছেন।

সরকার পক্ষের কৌঁসুলি অরূপ চক্রবর্তী জানান, এ দিন মহম্মদ নিজামউদ্দিন ও কাদির হোসেন নামে দুই অভিযুক্তকে অন্তর্বর্তী জামিন দেওয়া হয়। তাঁদের ২৯ জুলাই গ্রেফতার করা হয়েছিল। পুলিশ ও জেলের হেফাজতে ২২ দিন কাটানোর পরে বিচারক তাঁদের জামিনের আবেদন মঞ্জুর করেন। ঘটনার রাতে তাঁরা মোটরসাইকেলে চেপে হাসপাতালে এসে চিকিৎসকদের মারধর ও ভাঙচুর করেন বলে অভিযোগ। পুলিশের তাড়া খেয়ে তাঁরা বাইক ফেলে পালিয়ে গিয়েছিলেন। পুলিশ তাঁদের বাইক দু’টি বাজেয়াপ্ত করেছিল। তাঁদের জামিনের বিরোধিতা করেন অরূপবাবু।

এ দিন ধৃতদের জামিনের আবেদন করে আইনজীবী সুমন গুপ্ত আদালতকে বলেন, পুলিশ তাঁর মক্কেলদের থেকে নতুন কোনও তথ্যপ্রমাণ জোগাড় করতে পারেনি। কোনও ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে তাঁদের দিয়ে গোপন জবানবন্দিও নথিভুক্ত করাননি তদন্তকারী অফিসার।