বাড়ির সামনে এসে দাঁড়াল পুলিশের গাড়ি। পুলিশ গাড়ি থেকে নামার আগেই ধুপধাপ শব্দ, ছায়ামূর্তির দৌড়াদৌড়ি। পুলিশের চিৎকারে ঘুম ভাঙল পড়শিদের। বাড়ির ছাদ থেকে আগ্নেয়াস্ত্র দেখিয়ে হুমকি দিতে শুরু করল তিন জন। আধ ঘণ্টা পরে অবশ্য পুলিশ ছাদ থেকেই পাকড়াও করেছে তিন দুষ্কৃতীকে। 

বৃহস্পতিবার ভোরে ঘটনাটি ঘটেছে নোয়াপাড়া দেশবন্ধু নগরে গঙ্গাপাড়ের একটি বাড়ির সামনে। নোয়াপাড়া থানার পুলিশ জানিয়েছে, ধৃতেরা ওই বাড়ির ছাদে বসে বোমা তৈরি করছিল। তাদের কাছ থেকে বোমার মশলা, ছ’টি মুখোশ, একটি এয়ারগান পাওয়া গিয়েছে। ধৃতদের নাম সম্রাট শর্মা, গোপাল সরকার এবং ধনঞ্জয় সরকার। তারা ওই এলাকারই বাসিন্দা। জেরায় ধৃতেরা জানিয়েছে, তাদের তিন সঙ্গী ছাদ থেকে গাছ বেয়ে পালিয়ে গিয়েছে। সকলেই চুরি-ডাকাতির সঙ্গে জড়িত। ডাকাতির জন্যই ওই ছাদে উঠে বোমা বানাচ্ছিল। দিন দু’য়েক আগে ভাটপাড়ায় এক ব্যবসায়ীর বাড়ি থেকে ১০ লক্ষ টাকা চুরি হয়েছে। চুরি হয়েছে আরও কয়েকটি বাড়িতেও। এ সবের সঙ্গে ধৃতেরা জড়িত কিনা, পুলিশ তা খতিয়ে দেখছে। ওই বাড়ির মালিককেও জেরা করছে পুলিশ।ব্যারাকপুর কমিশনারেটের ডিসি  (জোন ১) অজয় ঠাকুর জানান, “ধৃতেরা বোমা বানাচ্ছিল। তৈরি বোমা তাদের কাছে পাওয়া যায়নি। যারা পালিয়েছে, তারাই বোমা সঙ্গে করে নিয়ে গিয়েছে। তাদের খোঁজ চলছে।’’ পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, যে বাড়িটির ছাদে ধৃতেরা উঠেছিল, সেটি দেশবন্ধু নগরের নিমচাঁদ ঘাটের পাশে। গভীর রাতে গাছ বেয়ে তারা ওই বাড়ির ছাদে উঠে পড়ে। পুলিশের কাছে সেই খবর পৌঁছয়। পুলিশ একটি গাড়ি নিয়ে বাড়ির সামনে আসে। পুলিশের গাড়ির আলো দেখেই তিন দুষ্কৃতী দ্রুত গাছ বেয়ে নেমে পালিয়ে যায়। এক জনকে গাছ থেকে ঝাঁপ মেরে পালাতে দেখা গিয়েছে। পুলিশ তাড়া করার আগেই পালায় তারা। এরই মধ্যে পুলিশ বাড়িটিকে ঘিরে ফেলে।

ততক্ষণে ওই বাড়ির নীচে ভিড় করেছেন পাড়ার বাসিন্দারা। পুলিশ ছাদ থেকে দুষ্কৃতীদের নেমে আসতে বলে। কিন্তু তারা ছাদ থেকে নেমে না এসে পুলিশকে পাল্টা হুমকি দিতে থাকে। আগ্নেয়াস্ত্র উঁচিয়ে গুলি চালিয়ে দেবে বলে। নীচে দাঁড়ানো বাসিন্দাদের উপরে বোমা মারবে বলে। আতঙ্কে স্থানীয় বাসিন্দারা বাড়ির মধ্যে আশ্রয় নেন। কয়েক জন পুলিশ কর্মী বাড়ির বাইরে দাঁড়িয়ে থাকলেও কয়েক জন বাড়ির ভিতরে ঢুকে ছাদের দিকে এগোতে থাকেম। বাড়ির ভিতরে পুলিশ কর্মীরা ছাদের দরজায় পৌঁছে যাওয়ার পরে বাইরের পুলিশ কর্মীরা সরে গিয়ে দুষ্কৃতীদের গাছ বেয়ে নীচে নামতে বলে। ধন্দে পড়ে যায় দুষ্কৃতীরা। তারা যখন ভাবছে কী করবে, ততক্ষণে পুলিশ ছাদের দরজা দিয়ে ঢুকে পড়েছে। ধরা পড়ে যায় তিন জন। পুলিশের গাড়িতে তোলার আগে এলাকারা বাসিন্দারা তাদের ছিনিয়ে নিয়ে মারধরের চেষ্টা করেন।