শব্দদানবকে জব্দ করে দুর্গাপুজো মিটেছে সুষ্ঠু ভাবে। এ বার কালীপুজোতেও সেই ধারা বজায় রাখতে তৎপর পুলিশ। সম্প্রতি একটি বৈঠকে এ ব্যাপারে সতর্ক করা হয়েছে প্রতিটি কালীপুজো কমিটিকে।

সম্প্রতি জয়নগর ১ ব্লক অফিসে এলাকার পুজো কমিটিগুলিকে নিয়ে বৈঠক হয়। সেখানে শব্দ দূষণ নিয়ে সতর্ক করা হয় কমিটিগুলিকে। পুজোর দিন অথবা বিসর্জনে ডিজে বক্স বাজানোর ব্যাপারেও নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। পুজো মণ্ডপে রুচিশীল গান বাজানোর জন্য অনুরোধ করা হয়েছে কমিটিগুলিকে। কালীপুজোর পাশাপাশি এ দিন এলাকার বেশ কয়েকটি জগদ্ধাত্রী পুজো কমিটির সদস্যেরাও বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

পুলিশ সূত্রের খবর, কালীপুজোর ক্ষেত্রে থানার অনুমতি ছাড়াও অনেক পুজো হয়। তারা যাতে শব্দদূষণের ব্যাপারে সতর্ক থাকে, সে দিকেও কড়া নজর রাখা হবে। পাশাপাশি এলাকায় শব্দ বাজি তৈরি বা বিক্রি হচ্ছে কিনা, সে দিকেও নজর রাখা হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। কিছু দিন আগে বিক্রির জন্য শব্দবাজি মজুত করার অভিযোগে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতারও করা হয়। বাজেয়াপ্ত হয় কয়েক হাজার শব্দবাজি।

জয়নগর থানার আইসি অতনু সাঁতরা বলেন, ‘‘দুর্গাপুজোর তুলনায় কালীপুজোয় শব্দের দাপট বেশি থাকে। কিন্তু তা নিয়ন্ত্রণে আমরা বদ্ধপরিকর। পুজো কমিটিগুলিকে প্রয়োজনীয় নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি আমাদের তরফেও নজরদারি চলছে। আশা করছি, এলাকার মানুষ দুর্গাপুজোর মতোই সুষ্ঠু পরিবেশ পাবেন।’’ 

দক্ষিণ বারাসতের জোড়াপোল এলাকার একটি বড় পুজো কমিটির সম্পাদক রাজেশ সাহা বলেন, ‘‘শব্দদূষণ নিয়ে আমরা বরাবরই সতর্ক থাকি। পুলিশের নির্দেশের পরে আরও সতর্কতা নেওয়া হবে।’’