সপ্তাহ তিনেক নিখোঁজ থাকার পরে মাস চারেকের এক শিশুকে উদ্ধার করল পুলিশ। দক্ষিণ ২৪ পরগনার কুলপির ওই শিশুটি এবং তার মা ও পিসি নিখোঁজ হয়ে গিয়েছিলেন। কয়েক দিন আগে পিসিকে উদ্ধার করে পুলিশ। তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করে পাওয়া তথ্যের সূত্র ধরে শনিবার পানাগড় থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়। সেখানে এক মহিলার কাছে শিশুটিকে বিক্রি করা হয়েছিল বলে অভিযোগ। তবে শিশুটির মায়ের এখনও খোঁজ মেলেনি বলে জানিয়েছে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, কুলপি থানার বাসিন্দা এক মহিলা চার মাসের ছেলেকে নিয়ে ২২ অগস্ট ডায়মন্ডহারবারে হাসপাতালে যাওয়ার জন্য বাড়ি থেকে বেরিয়েছিলেন। সঙ্গে ছিলেন শিশুটির পিসি। সারা দিন পেরিয়ে গেলেও তাঁরা বাড়ি না ফেরায় কুলপি থানায় একটি নিখোঁজ ডায়েরি করা হয় পরিবারের তরফে। পুলিশ সূত্রে জানা যায়, কয়েক দিন পরে শিশুটির পিসিকে সুভাষগ্রাম এলাকায় রাস্তা থেকে উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারের সময়ে তিনি বেহুঁশ ছিলেন। তাঁর চিকিৎসা করানো হয়।

পুলিশের দাবি, শিশুটির পিসিকে জিজ্ঞাসাবাদ করে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে শিয়ালদহ থেকে সুনীতা ভট্টাচার্য নামে এক মহিলাকে গ্রেফতার করা হয়। জেরায় সেই মহিলা জানায়, শিশুটিকে বিক্রি করা হয়েছে। তার কাছ থেকে যে তথ্য মেলে তার ভিত্তিতে এ দিন পানাগড়ে এক মহিলার বাড়িতে অভিযান চালায় কুলপি থানার পুলিশ। সেখান থেকেই শিশুটিকে উদ্ধার করা হয় বলে পুলিশ জানিয়েছে। যার বাড়িতে শিশুটি মিলেছে, তাকেও আটক করে নিয়ে যায় পুলিশ।

পুলিশের দাবি, জেরায় সুনীতা জানিয়েছে, শিশুটিকে কয়েক লক্ষ টাকায় বিক্রি করা হয়েছিল। গোটা চক্রে আর কারা জড়িত, শিশুটির মা কোথায় রয়েছেন, তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।