রেলের অনুষ্ঠানের কার্ডে নাম ছিল তৃণমূল বিধায়কের। কিন্তু তিনি না আসায় ক্ষোভ প্রকাশ করলেন বিজেপি সাংসদ। বৃহস্পতিবার পাণ্ডবেশ্বর স্টেশনে একটি নতুন টিকিট কাউন্টারের উদ্বোধনে এসে আসানসোলের সাংসদ তথা কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয় বলেন, ‘‘যে কোনও রকম উন্নয়নের কাজে রাজনীতির রং ভুলে সবার আসা উচিত।’’ তৃণমূল বিধায়ক জিতেন্দ্র তিওয়ারি অবশ্য জানান, পূর্বনির্ধারিত কর্মসূচি থাকায় তিনি যেতে পারেননি।

এ দিন পাণ্ডবেশ্বর স্টেশনে ‘ইউটি কাম পিআরএস’ কাউন্টারের উদ্বোধন করেন বাবুল। তিনি বলেন, “অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণপত্র ও উদ্বোধনী ফলকে জিতেন্দ্রবাবুর নাম রয়েছে। কিন্তু তিনি আসেননি। তিনি হয়তো আমাকে বা মানুষকে ভয় পান। এখনও পর্যন্ত কোনও অনুষ্ঠানে আমার সঙ্গে মঞ্চে তৃণমূলের কোনও নেতা আসেননি।” ফলক উদ্বোধন করার পরে তাঁর মন্তব্য, ‘‘এখানে এখন জিতেন্দ্র তিওয়ারির নাম লেখা রয়েছে। জানি না আগামী দিনে থাকবে কি না।” আসানসোলের ডিআরএম সুমিত সরকার অনুষ্ঠানে বলেন, “পাণ্ডবেশ্বরে যাতে কয়েকটি দূরপাল্লার ট্রেন দাঁড়ায়, সেই ব্যবস্থা করা হচ্ছে।”

জিতেন্দ্রবাবু অবশ্য বলেন, ‘‘আমার কাছে বুধবার সন্ধ্যায় আসানসোলের ডিআরএমের দফতর থেকে আমন্ত্রণপত্র পাঠানো হয়। কিন্তু দশ দিন আগে থেকে ঠিক করে রেখেছিলাম, বৃহস্পতিবার পাণ্ডবেশ্বরে অজয়ের পাড়ে বিধায়ক তহবিলে তৈরি শ্মশানের ছাউনি, বিশ্রামাগার ও কেন্দ্রায় দুর্গামন্দিরের পরিকাঠামোর উদ্বোধন করব। সেগুলিই করেছি।’’ তিনি আরও জানান, রেলের অনুষ্ঠানে থাকতে না পারার কথা এ দিন সকাল ১০টা নাগাদ রেলকর্তাদের লিখিত ভাবে জানিয়েছেন। বাবুলের অভিযোগ নিয়ে তাঁর প্রতিক্রিয়া, ‘‘আমার কেন্দ্রে সাংসদ আরও কাজ করলে খুশি হব। মানুষ আমাকে নির্বাচিত করেছেন, তাই ভয় পাওয়ার প্রশ্ন নেই।’’