বাড়ির প্রবেশ পথে নোংরা ফেলে রাখছেন পড়শি। বারবার সমস্যার কথা বলেও লাভ হয়নি। শেষমেশ নোংরা সাফ করার দাবিতে শনিবার খোদ পুরপ্রধানের বাড়ির সামনে ধর্নায় বসার কথা জানালেন দাঁইহাটের এক দম্পতি। শনিবারের ঘটনা।

দাঁইহাট পুরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডের বাগটিকরা বকুলতলায় বাড়ি পেশায় ট্রেনের হকার গৌরগোপাল দত্তের। সম্প্রতি তাঁর তিন শতক জায়গার উপরে প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা প্রকল্পের আর্থিক সাহায্যে বাড়ি তৈরি করেন তিনি। গৌরগোপালবাবু ও তাঁর স্ত্রী রিনা দত্তের অভিযোগ, বাড়ির পিছনের পড়শি পরিবার বাড়িতে ঢোকার সঙ্কীর্ণ রাস্তাটি ব্যবহার   করতে দিচ্ছে না। এমনকি, এক সপ্তাহ ধরে বাড়ির সামনে আবর্জনা ও কাচ ফেলে রাখা হচ্ছে বলে অভিযোগ। 

গৌরগোপালবাবুর স্ত্রী রিনা দত্তের অভিযোগ, ‘‘ওই পড়শিকে বারবার বলেও লাভ হচ্ছে না। তাই এই ধর্না।’’ স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ওই রাস্তাটি নিয়ে মামলাও চলছে দু’টি পরিবারের মধ্যে। 

এই পরিস্থিতিতে এ দিন গৌরগোপালবাবু ও তাঁর স্ত্রী বেলা ১১টা নাগাদ পুরপ্রধান শিশির মণ্ডলের বাড়ির সামনে ‘ধর্নায়’ বসে পড়েন। পুরপ্রধান বলেন, ‘‘গৌরগোপালবাবুর পড়শিকে বলা হয়েছে, এমনটা যেন না করা হয়। নোংরাও সাফ করতে হবে তাঁদেরই। তা না হলে আইনি পদক্ষেপ করা হবে।’’

শেষমেশ পুরপ্রধান ও পুলিশের আশ্বাসে ধর্না তোলেন ওই দম্পতি।