ছেলেধরা সন্দেহে এক বয়স্ক ব্যক্তিকে গণধোলাইয়ের অভিযোগ উঠল কেতুগ্রামের বিল্লেশ্বর গ্রামে। পরে পুলিশ গিয়ে তাঁকে উদ্ধার করে। ওই বৃদ্ধ দিলীপ সর্দারকে মারধর এবং খুনের চেষ্টার অভিযোগে গ্রেফতারও করা হয়েছে ওই গ্রামের এক বাসিন্দা কেষ্ট মাজিকেও। বৃহস্পতিবার ধৃতকে কাটোয়া আদালতে তোলা হলে বিচারক তিন দিনের বিচারবিভাগীয় হেফাজতের নির্দেশ দেন। 

কিছুদিন আগেই ছেলেধরা গুজবের জেরে দক্ষিণ ২৪ পরগণার বেশ কিছু জায়গায় গণপিটুনির অভিযোগ উঠেছিল। তার আগে কালনাতেও গণপিটুনির জেরে মৃত্যু হয়েছিল এক জনের। পুলিশ, প্রশাসনের তরফে বারবার এ ধরনের গুজবে কান না দেওয়া, প্রয়োজনে পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করার কথা বলা হয়। তার পরেও সচেতনতা যে সর্ব স্তরে ছড়ায়নি তা প্রমাণ হল এ দিনের ঘটনায়। 

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ওই দিন গ্রামের শিবমন্দিরের কাছে দিলীপবাবুকে ইতস্তত ঘোরাফেরা করতে দেখে, বাড়িতে উঁকি মারতে দেখে সন্দেহ হয় এলাকার লোকজনের। বিল্লেশ্বর, গুড়পারা এলাকার কিছু বাসিন্দারা তাঁকে মারধর করেন বলে অভিযোগ। পুলিশের দাবি, মানসিক ভারসাম্যহীন ওই বৃদ্ধ নিজের নাম বলতে পারলেও ঠিকানা জানাতে পারেননি। ভিক্ষা করেই তাঁর দিন কাটত বলেও পুলিশের অনুমান। ও এলাকায় গুজবে কান না দেওয়ার কথা প্রচার করা হবে বলেও কেতুগ্রাম থানার দাবি।

দিল্লি দখলের লড়াইলোকসভা নির্বাচন ২০১৯