• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

মোবাইল নিয়ে ধরা পড়ল দুই পরীক্ষার্থী

mobile
প্রতীকী ছবি

মোবাইল নিয়ে পরীক্ষার হলে ঢুকতে গিয়ে ধরা পড়ল বর্ধমান ও গলসির দু’জন উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী। বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হয়েছে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা। পরীক্ষাকেন্দ্রে মোবাইল ব্যবহার রুখতে কড়া পদক্ষেপ করেছে উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ। এ বার থেকে প্রতিটি পরীক্ষার ঘরে কেউ মোবাইল ব্যবহার করছেন কি না, তা দেখার জন্যে এক জন বিশেষ নজরদার নিয়োগ করা হয়েছে। 

বিদ্যার্থী বয়েজ স্কুল সূত্রে জানা যায়, এ দিন প্রশ্নপত্র দেওয়ার আগেই বর্ধমান মিউনিসিপ্যাল হাইস্কুলের এক ছাত্রের কাছে মোবাইল রয়েছে, দেখতে পান বিশেষ নজরদার। তিনি মোবাইলটি বাজেয়াপ্ত করেন। উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদের পূর্ব বর্ধমানের যুগ্ম আহ্বায়ক মিন্টু রায় বলেন, ‘‘সংসদের নির্দেশ অনুযায়ী, ওই ছাত্রের প্রথম দিনের পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে।’’ সংসদের নির্দেশ রয়েছে, পরীক্ষার্থীদের কাছে মোবাইল নেই, বিশেষ নজরদারের কাছ থেকে এই বার্তা পাওয়ার পরেই প্রশ্নপত্র বিলি হবে। পরীক্ষা শুরুর পরেও কারও কাছে মোবাইল পাওয়া গেলে তার সব পরীক্ষা বাতিল তো বটেই, সেই পরীক্ষার্থী সংসদের কোনও পরীক্ষায় বসতে পারবে না। 

এ দিন পরীক্ষা শুরুর পরে গলসির পুরসা হাইস্কুলের পরীক্ষাকেন্দ্র থেকে গলসি হাইস্কুলের এক ছাত্রের কাছে মোবাইল পাওয়া যায়। তারও পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে। সংসদের আঞ্চলিক অধিকর্তা (বর্ধমান) শৌভিক ঘোড়ুই বলেন, ‘‘ওই স্কুল থেকে রিপোর্ট মেলার পরে বিশেষ কমিটি বৈঠক করে পরীক্ষার্থীর ভবিষ্যৎ ঠিক করবে।’’ সংসদের জেলার উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য রথীন রায় পূর্বস্থলীর বিভিন্ন কেন্দ্রে ঘোরার ফাঁকে বলেন, ‘‘প্রতিটি পরীক্ষাকেন্দ্রের বাইরে মোবাইল সম্পর্কিত সচেতনবার্তার ফ্লেক্স টাঙানো যায় কি না, সংসদকে সেটা দেখার জন্য বলব।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন