• সুব্রত জানা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

হাওড়ায় নয়া তালিকাতেও নাম নেই কিছু ক্ষতিগ্রস্তের

hg
অসহায়: ভেঙে যাওয়া ঘরের সামনে বসে সুভাষ দলুই। —নিজস্ব চিত্র

এ বার প্রশ্ন সংশোধিত তালিকা নিয়েও!

রাজ্য সরকারের নির্দেশমতো বৃহস্পতিবার আমপানে ক্ষতিগ্রস্ত উলুবেড়িয়া-২ ব্লকের ৯১৩ জনের সংশোধিত তালিকা প্রকাশ হয়েছে। তা টাঙানো রয়েছে ব্লক অফিসে। কিন্তু এ বারও তালিকায় জায়গা হয়নি ওই ব্লকের বাণীবন পঞ্চায়েতের বাগপাড়ার দুই ক্ষতিগ্রস্ত— সুভাষ দলুই এবং আশিস দলুইয়ের। হতাশ হয়ে তাঁদের ফিরতে হয়েছে। বাড়ি সম্পূর্ণ ধূলিসাৎ হয়ে যাওয়ায় ঝড়ের এক মাস পরেও তাঁরা পলিথিনের ছাউনির নীচে সপরিবারে দিন কাটাচ্ছেন। প্রথমবার পঞ্চায়েতের তালিকাতেও তাঁদের নাম ছিল না। নতুন তালিকা করে কী লাভ হল, প্রশ্ন তুলেছেন তাঁরা।

সুভাষ বলেন, ‘‘ঝড়ে বট গাছ পড়ে বাড়ি ভেঙে গিয়েছিল। একদিন পরেই পঞ্চায়েতে ক্ষতিপূরণের জন্য আবেদন করি। ক্ষতিপূরণ পাইনি । পরে ব্লক অফিসেও আবেদন করি। ওখান থেকে থেকে তদন্ত করতেও এসেছিল। কিন্তু এখন দেখছি, তালিকায় নাম নেই।’’ আশিসের খেদ, ‘‘পঞ্চায়েত ও ব্লক অফিস—দু’জায়গাতেই  আবেদন করেছিলাম। ব্লক অফিস থেকে কেউ তদন্ত করতেই আসেননি। অথচ, তালিকা প্রকাশ হয়ে গেল। আমরা কী দোষ করলাম?’’

নয়া তালিকায় দুই প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্তের নাম না-থাকলেও আশ্বস্ত করেছেন বিডিও নিশীথকুমার মাহাতো। তিনি বলেন, ‘‘যদি কোনও প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্তের নাম বাদ যায় তা হলে তিনি ফের আবেদন করতে পারেন। সে ক্ষেত্রে ফের তদন্ত করে নিশ্চয়ই বিবেচনা করা হবে।’’ ওই ব্লকের টাস্ক ফোর্সের সদস্য তথা উলুবেড়িয়া-২ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি শেখ ইলিয়াসও বলেন, ‘‘প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্তেরা কেউ এই তালিকা থেকে বাদ পড়ে থাকলে ফের তদন্ত করে তাঁর নাম নথিভুক্ত করা হবে। কোনও ক্ষতিগ্রস্ত বাদ যাবেন না।’’

আমপানের ঠিক পরেই পঞ্চায়েত এবং পঞ্চায়েত সমিতিগুলি ক্ষতিগ্রস্তদের যে তালিকা তৈরি করে, তা নিয়ে সরগরম হয় রাজ্য-রাজনীতি। তালিকায় প্রচুর ভুয়ো নাম থাকার অভিযোগ ওঠে। যার জেরে রাজ্য সরকারের নির্দেশমতো বিডিও-রে নেতৃত্বে টাস্ক ফোর্স (সদস্যেরা হলেন বিধায়ক, থানার ওসি/আইসি এবং পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি) ওই তালিকা যাচাই শুরু করে। সংশোধিত তালিকা তৈরি হয়। কিন্তু উলুবেড়িয়া-২ ব্লকে সংশোধিত তালিকাতেও দুই প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্তের নাম না-থাকায় প্রশ্ন তুলছেন বিরোধীরা।

বিজেপি নেতা অনুপম মল্লিক বলেন, ‘‘টাস্ক ফোর্সে অধিকাংশই শাসকদলের লোক। তাঁদের থেকে সঠিক তালিকা আশা করা যায় না। সঠিক তালিকা তৈরি করতে হলে নিরপেক্ষ সংস্থাকে দায়িত্ব দিতে হবে।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন