উৎপাদন ক্ষমতা বেশি থাকা সত্ত্বেও কিছু পরিমাণ দুধ তৈরির জন্য অন্য সংস্থাকে বরাত দেওয়ার তোড়জোড় চলছে, এই অভিযোগে বিক্ষোভ দেখালেন হুগলির ডানকুনির মাদার ডেয়ারির শ্রমিকদের একাংশ। শুক্রবার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত তাঁরা কারখানার গেটের সামনে অবস্থানে বসেন। শাসক দলের শ্রমিক সংগঠন আইএনটিটিইউসি প্রভাবিত ‘মাদার ডেয়ারি ওয়ার্কমেন্স ইউনিয়নের’ নেতৃত্বে ওই আন্দোল‌ন শুরু হয়েছে। আজ, শনিবারেও অবস্থান চলার কথা।

আন্দোলনকারীদের দাবি, স্থায়ী, অস্থায়ী এবং বদলি মিলিয়ে এখানে প্রায় সাতশো শ্রমিক কাজ করেন। তিনটি শিফটে কাজ হয়। দৈনিক ছ’লক্ষ লিটার দুধ উৎপাদনের ক্ষমতা রয়েছে এই ইউনিটে। প্রতিদিন দুই থেকে সাড়ে তিন-চার লক্ষ লিটার পর্যন্ত উৎপাদন হয়। শ্রমিকরা সম্প্রতি জানতে পারেন, ২০ হাজার লিটার দুধ তৈরির বরাত এখান থেকে বেলগাছিয়ার একটি সংস্থাকে দিয়ে দেওয়া হবে। কোনও আলোচনা ছাড়াই কর্তৃপক্ষ ওই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে তাঁদের অভিযোগ। শ্রমিকদের আশঙ্কা, দৈনিক ২০ লিটার দুধ অন্যত্র তৈরি হলে ঠিকা বা বদলি শ্রমিকদের কাজ পাওয়ার ক্ষেত্রে সমস্যা হবে। তার উপর, ওই সংস্থায় তৈরি দুধের মান নিয়ে প্রশ্ন উঠলে তার দায় ডানকুনির সংস্থার উপরেই বর্তাবে। কারণ এখানকার লেবেল সেঁটেই ওই দুধ বিক্রি হবে।

কারখানাটির আইএনটিটিইউসি সহ সভাপতি অশোক বিশ্বাস বলেন, ‘‘এখানে ক্ষমতা থাকা সত্ত্বেও অন্য কারখানায় দুধ উৎপাদন করানোর যৌক্তিকতা নেই। তাতে এখানকার শ্রমিকরা বঞ্চিত হবেন‌। কাজ চালু রেখে আন্দোলন করা হচ্ছে।’’ তাঁর অভিযোগ, ‘‘কর্তৃপক্ষ বিষয়টি নিয়ে আমাদের কিছুই জানাননি। আমরা চিঠি দিলেও প্রত্যুত্তর করেননি।’’

রাজ্যের প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতর এবং মাদার ডেয়ারির এক আধিকারিক বলেন, ‘‘ প্রস্তাব নিয়ে দফতরে আলোচনা হয়েছে ঠিকই। তবে কিছুই চূড়ান্ত হয়নি। ফলে আলোচনার স্তরে থাকা একটি বিষয় নিয়ে এখনই বলার মতো কিছু নেই।’’