বালির গঙ্গার ঘাটে তরুণীর কাটা মাথা ভেসে আসেনি। ঘটনার তদন্তে নেমে প্রাথমিক ভাবে এ বিষয়ে নিশ্চিত পুলিশ। তবে ওই ঘটনা নিয়ে ক্রমশ রহস্য দানা বাঁধছে।

পুলিশ সূত্রের খবর, ভাটার সময়ে কাদামাটিতে পড়ে ছিল কাটা মাথাটি। সাধারণত দেহ ছাড়া শুধু কোনও কাটা মাথা পচন ধরে ফুলে না ওঠা পর্যন্ত ভেসে উঠতে পারে না। কিন্তু উদ্ধার হওয়া ওই কাটা মাথায় কোনও পচন ধরেনি। এমনকি, লোহার তৈরি ধারালো পাঁচটি অস্ত্র ভরা ব্যাগটিও ভেসে আসা সহজ নয় বলে জানাচ্ছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার সকালে বালি খাল সংলগ্ন জেটিয়া ঘাটের কাছে একটি সরু গলির ভিতরে গঙ্গার ঘাটের কাদামাটি থেকে উদ্ধার হয় কাটা মাথা, দেহের উপরের অংশের অসংখ্য খণ্ড ভরা ব্যাগ, ধারালো অস্ত্র এবং জামাকাপড়।

সূত্রের খবর, এখনও তরুণীর পরিচয় জানা যায়নি। তদন্তকারীদের অনুমান, বৃহস্পতিবার ভোরে একাধিক ব্যক্তি ঘাটে এসে ব্যাগটি ফেলে। তারা সম্ভবত জানত না যে, ভাটা চলছে। জল কিছুটা দূরে রয়েছে দেখে ব্যাগ ছুড়ে ফেলে তারা ভেবেছিল সেগুলি ভেসে চলে যাবে। কিন্তু ভাটা চলায় কাদায় আটকে যায় ব্যাগ ও কাটা মাথা। তদন্তে বালি খাল মোড়ে থাকা সিসি ক্যামেরা পরীক্ষা করে সন্দেহজনক কাউকে দেখা যায়নি বলেই দাবি পুলিশের।

প্রশ্ন যেখানে

• যে ঘাট স্থানীয়েরাই অনেকে চেনেন না, তার খোঁজ বহিরাগতেরা কী ভাবে পেল
• কোথা দিয়ে ঘাটে ঢুকল দুষ্কৃতীরা
• ঘাটে আসার যে পথগুলিতে সিসি ক্যামেরা নেই, তা চিনল কী ভাবে
• মুখ বিকৃত করা হয়নি কেন
• খুনের কাজে কি ভাড়াটে খুনি লাগানো হয়েছিল

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও।সাবস্ক্রাইব করুনআমাদেরYouTube Channel - এ।